টিডিএন বাংলা ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন এক কথা আর তার দলেরই বিধায়ক বলেন আরেক কথা। কন্যা শিশুদের বিয়ে ঠেকাতে মোদি ‘বেটি বাঁচাও, বেটি বাঁচা’ প্রচারে নেমেছেন।
কিন্তু বিজেপি বিধায়ক গোপাল পারমার লাভ জেহাদ ঠেকাতে শিশু বয়সেই মেয়েদের বিয়ে দেওয়ার নিদান দিয়েছেন। দেশের কট্টর হিন্দুত্ববাদীদের আশঙ্কা, ধর্মান্তরিত করার জন্যই সংখ্যালঘু যুবকরা হিন্দু মেয়েদের বিয়ে করছে। এ কৌশলের নামই নাকি ‘লাভ জেহাদ’।
মধ্যপ্রদেশের আগর মালওয়া কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক গোপাল পারমারের কথায়, ভালো মানুষ সেজে কেউ কেউ স্কুলছাত্রীদের টার্গেট করছে। এই বিপদ এড়ানোর জন্যই মেয়েদের শিশু বয়সে বিয়ে দিয়ে দিন।
পারমারের মতো বিজেপি নেতাদের যুক্তি, আগেকার দিনে ছেলেমেয়েদের অল্পবয়সেই বিয়ে হয়ে যেত, নইলে তাদের বিয়ে ঠিক করে রাখা হতো। ফলে তারা ভুলের ফাঁদে পা দিত না। কিন্তু এখন মেয়েদের সময়মতো বিয়ে না হওয়ায় বিপদ বাড়ছে।
১৮ বছরের কম বয়সীদের বিয়ে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্তকে পারমার ‘সামাজিক ব্যাধি’ বলে চিহ্নিত করেছেন। বাবা-মায়েদের উদ্দেশ্যে তার পরামর্শ, মেয়েরা যাতে লাভ জেহাদিদের খপ্পরে না পড়ে, সে ব্যাপারে সতর্ক থাকুন।
মধ্যপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক গোপাল পারমারের নিশানায় যে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়, তা আর বলে দিতে হচ্ছে না।
বিরোধীরা তার বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক বিভাজনের অভিযোগ তুলেছেন। কিন্তু শাস্তি তো দূরের কথা। পারমারকে এখনও পর্যন্ত সতর্ক পর্যন্ত করেনি বিজেপি।
তথ্যসূত্র : আনন্দবাজার