টিডিএন বাংলা ডেস্ক: প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর প্রতিবছর ২ কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু রিপোর্ট বলছে তার কালেই সব চেয়ে বেকারত্বের হার বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ৪৫ বছরে সর্বোচ্চ বেকারত্বের হার মোদি সরকারের আমলেই। কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রকের প্রকাশ করা তথ্যে রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়েছেন দ্বিতীয় বার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদি।

দেশে আর্থিক বৃদ্ধির হার ফের কমে দ্রুততম বৃদ্ধি পাওয়া দেশে’র তকমা হারানোর পাশাপাশি এবার আরও বাড়ল বেকারত্ব বিড়ম্বনা। ২০১৭-১৮ সালে দেশে বেকারত্বের হার ছিল ৬.১%। যা ৪৫ বছরে সর্বোচ্চ। প্রসঙ্গত, কর্মসংস্থান নিয়ে এই রিপোর্ট ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল আগে।

শুক্রবার কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রকের থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, শহুরে এলাকায় বেকারত্বের হার ৭.৮%। গ্রামীণ এলাকায় তা ৫.৩%। গোটা দেশে পুরুষদের মধ্যে বেকারত্বের হার ৬.২%। মহিলাদের মধ্যে তা ৫.৭%।

শুধু তাই নয়। আশঙ্কা রয়েছে চলতি বছরের বেকারত্বের হার নিয়েও। CMIE-র রিপোর্ট অনুযায়ী, এপ্রিলের প্রথম তিন সপ্তাহেই ৭%-এর বেশি ছিল দেশে বেকারত্বের হার।

বছরে ২ কোটি কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। তবে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তার প্রথম সময়কালে কর্মসংস্থানের ছবি মোটেই উজ্জ্বল ছিল না। বিভিন্ন পরিসংখ্যানে তা সামনে এসেছে।