টিডিএন বাংলা ডেস্ক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দাবি করে বলেছেন, মোদী সরকারের কয়েক ডজন গুরুত্বপূর্ণ নীতিগত উদ্যোগের মধ্য দিয়ে পরিবর্তনের নতুন অধ্যায় লিখেছে। এই সিদ্ধান্তগুলি জনগণের জীবনে উল্লেখযোগ্য উন্নতি করেছে এবং ভারতকে বৈশ্বিক উন্নয়নের ইঞ্জিনে পরিণত করেছে।

কংগ্রেসের সমালোচনা করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন যে, পূর্ণ সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার নিয়ে তারা আটবার ভারতবর্ষের সেবা করার সুযোগ পেয়েছিলেন তবে তাদের এমন কোন ১০ পদক্ষেপকে বিপ্লবী পরিবর্তনের কারণ হিসাবে গণ্য করা যায় না। শুক্রবার টাইমস অফ ইন্ডিয়া পত্রিকায় প্রকাশিত একটি নিবন্ধে শাহ বলেছিল যে মোদী সরকার ব্যবসায়ী সমাজকে গুরুত্ব দিয়েছে কারণ প্রধানমন্ত্রী সর্বদা বিশ্বাস করতেন যে যদি উদ্যোক্তা সম্প্রদায় কোনও দেশের অগ্রগতি পরিচালনা না করে তবে সেই দেশ এগিয়ে যেতে পারে না।

তিনি বলেছেন, অনুচ্ছেদ ৩৭০ এবং ৩৫ এ সম্পর্কিত সরকারের সিদ্ধান্ত এবং সংসদের উভয় সভায় এর সাথে সম্পর্কিত বিল পাসের মাধ্যমে মোদীর দৃঢতা এবং ‘এক জাতি, এক সংবিধানের’ নীতিটি উপলব্ধি করার রাজনৈতিক দক্ষতা প্রমাণিত হয়েছে। এর সাথে জম্মু ও কাশ্মীর উন্নয়নের নতুন যুগে প্রবেশ করছে।
শাহ বলেছেন একইভাবে মোদী সরকার নোটবন্দী, জিএসটি, তিন তালাক বিলুপ্তকরণ, আন্তঃসীমান্ত সন্ত্রাসী ঘাঁটিতে বিমান হামলা এবং সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, ওয়ান র‌্যাঙ্ক ওয়ান পেনশনের মত পদক্ষেপগুলিও নিয়েছে। যা খুব কঠিন কাজ বলে বিবেচিত হয়েছিল।
তিনি সরাসরি বেনিফিট ট্রান্সফার, চিফ ডিফেন্স স্টাফের পদ সৃষ্টি, ইউএপিএ সংশোধনী বিল পাসের মত সিদ্ধান্তও নিয়েছেন। স্বরাস্ট্রমন্ত্রীর মতে, “এই পদক্ষেপগুলি অবশ্যই তাকে ভারতের সবচেয়ে শক্তিশালী প্রধানমন্ত্রী হিসাবে উপস্থাপিত করেছে।”