টিডিএন বাংলা ডেস্কঃ রাজ্যে স্বীকৃত মাদ্রাসাগুলি আধুনিকরণ করবে উত্তরপ্রদেশ সরকার। এখন মাদ্রাসা গুলোতে শুধু ধর্মীয় শিক্ষা দেওয়া হলেও পাশাপাশি হিন্দি, ইংরেজি, বিজ্ঞান, সামাজিক বিজ্ঞান, কম্পিউটার ইত্যাদি আধুনিক বিষয়গুলিকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে এবার। ধর্মীয় শিক্ষা (দ্বিনীয়াত) একটিমাত্র বিষয় থাকবে।

মঙ্গলবার ইউপি মাদ্রাসা শিক্ষা কাউন্সিলের সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি এই মাদ্রাসা গুলিতে হিন্দি, গণিত ও বিজ্ঞানের বিষয়গুলি বাধ্যতামূলক করা হবে। ইংরেজি আগেই বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এই ধারাবাহিকতায় সামাজিক বিজ্ঞান এবং কম্পিউটারকে বৈকল্পিক বিষয় করা হয়েছে।

মাদ্রাসা শিক্ষকদের সংগঠন মাদারিস আরবীয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদুল্লাহ খান সরকারের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান।

এদিকে উত্তর প্রদেশ সরকার রাজ্যের স্বীকৃত, ভর্তুকিযুক্ত মাদ্রাসাগুলির শিক্ষাব্যবস্থায় বড় ধরনের পরিবর্তন সাধন করার উদ্যোগ নিয়েছেন। এখন এই মাদ্রাসাগুলিতে মুন্সী-মৌলভীর পাঠ্যক্রম মাধ্যমিক হিসাবে পরিচিত হবে। একইভাবে আলিমের কোর্সটির নাম পরিবর্তন করে সিনিয়র মাধ্যমিক রাখা হয়েছে। খাজা মইনুদ্দিন চিশতী আরবি ফার্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তির পরে কামিল অর্থাৎ গ্রাজুয়েট এবং ফাজিল অর্থাৎ পোস্ট গ্রাজুয়েটের নাম শীঘ্রই পরিবর্তিত হবে।
মঙ্গলবার অধ্যক্ষ সচিব সংখ্যালঘু কল্যাণ মনোজ সিংয়ের সভাপতিত্বে মাদ্রাসা কাউন্সিলের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কাউন্সিলের রেজিস্ট্রার এস এন পান্ডে সিদ্ধান্ত সম্পর্কে তথ্য প্রদান করে বলেন, মাদ্রাসার কোর্সে প্রশ্নপত্রের সংখ্যাও হ্রাস পেয়েছে। এখন অবধি মুন্সী-মৌলভীর কাছে একটি ঐচ্ছিক বিষয় সহ মোট ১১ টি প্রশ্নপত্র ছিল যা এখন ৬ টিতে নামিয়ে আনা হয়েছে।