টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ‘তিন তালাক’ বা বিবাহ বিচ্ছেদ, এটা মুসলিম দের নিজস্ব প্রচলিত ধর্মীয় ব‍্যাপার। আর এই ধর্মীয় ব‍্যাপারেও হস্তক্ষেপ করে চলেছে‌ নরেন্দ্র মোদির সরকার। এর আগে সংসদে বিজেপির সংখ‍্যাগরিষ্টতা না থাকায় তিন তালাককে বেআইনি হিসেবে ঘোষণা করতে অসমর্থ হয়েছিল বিজেপি। কিন্তু ২০১৯ লোকসভায় বিজেপি একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় সরকার গঠন করেছে। তাই সংসদে এই বিল পাস করাতে বিজেপির আর কোনো অসুবিধা হবে না।

শুক্রবার লোকসভায় তিন তালাক বা বিবাহ বিচ্ছেদ, যা মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে প্রচলিত, তাকে বেআইনি হিসেবে ঘোষণা করার একটি বিল পেশ হল। এবং আগামী সপ্তাহে তিন তালাক নিয়ে একটি আনুষ্ঠানিক বিতর্ক হবে। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের পরে এই প্রথম সংসেদর নিম্ন কক্ষে কোনও বিল নিয়ে নিয়ে পর্যালোচনা শুরু হল। মুসলিম মহিলা (বিবাহের অধিকার সুরক্ষা) বিল ২০১৯ থেকে একটি অর্ডিন্যান্স গত ফেব্রুয়ারিতে এনেছিল বিজেপি-নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার। বিলটি রাজ্যসভায় আটকে গিয়েছিল।

এদিন লোকসভায় তিন তালাক বিলের ঘোর বিরোধিতা করেন AIMIM সুপ্রিমো ও সাংসদ আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। শুধু তিনি নন এই বিলের বিরোধিতা জানান কংগ্রেসের সাংসদ শশী থারুরও। ওয়াইসি বিলের বিরোধিতা করে বলেন, তিন তালাক বিল ‘বৈষম্যমূলক আইন’ এবং ‘বিলটির উদ্দেশ্য স্পষ্ট নয়’। একজন অ-মুসলিম ব্যক্তি এক বছরের জন্য জেলে যাবেন অথচ একজন মুসমিলকে তিন বছরের জন্য জেলে যেতে হবে একই অপরাধে। আপনারা মুসমিল মহিলাদের প্রতি ভালোবাসা দেখাচ্ছেন। কিন্তু কেরলের মহিলারা যাঁরা শবরীমালায় ঢুকতে চান তাঁদের জন্য দেখাচ্ছেন না।”

লোকসভায় কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর তিন তালাক বিলের বিরোধিতা করে বলেন, বিলটির ‘পদ্ধতিগত সুরক্ষা নেই’। বিলটি স্থায়ী কমিটির কাছে পাঠানো উচিত।

শুক্রবার তিন তালাক বিল নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানান, তিন তালাক বিল কোনও ধর্মের ব্যাপার নয়, তা মহিলাদের ন্যায়বিচার দেওয়ার জন্যই আনা হচ্ছে। তিন তালাক বিলের লক্ষ্য মুসলিম মহিলাদের মর্যাদা রক্ষা করা। তবে লোকসভায় বিলটি পেশ করা হলে বিরোধীরা বিরোধিতা করেন। সেপ্রসঙ্গে রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, ”আমি বিরোধিতাগুলি শুনছি। আমরা নির্বাচিত হয়েছি আইন প্রণয়নের জন্য। বিলটির সঙ্গে ধর্মের কোনও যোগ নেই, এটা মহিলাদের ন্যায়বিচার দেওয়ার জন‍্য করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মাত্র কয়েকদিন আগেই বিজেপি শরিক দল জেডিইউ তিন তালাক নিয়ে একটি মতামত পেশ করেছিল। সেখানে জেডিইউ এর মতামত, দীর্ঘ আলোচনা ছাড়া তিন তালাক বিল মুসলিমদের উপর চাপানো অনুচিত।