টিডিএন বাংলা ডেস্ক: নাগরিকত্ব প্রমাণ করতে বলে হায়দরাবাদে ১২৭ জনকে নোটিশ জারি করল ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়া বা ইউআইডিএআই। তাদের দাবি, হায়দরাবাদে বসাবাসরত ওই ১২৭ জন বাসিন্দা বেআইনি ভাবে তাদের আধার কার্ড ইস্যু করিয়েছেন। এবং আধার পেতে তাদের জমা দেওয়া নথি ভুয়ো।

এই বিষয়ে ইউআইডিএআই-এর তরফে বলা হয়, ‘আধার নাগরিকত্বের নথি নয়। ইউআইডিএআই আধার আইনের আওতায় আগেই জানিয়েছে যে আধার আবেদন করার আগে ভারতে কোনও ব্যক্তিকে ১৮২ দিন আবাসিক অবস্থান করতে হবে। এই মর্মে ১৮২ দিনের এই সময়সীমা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।’ এর আগে সুপ্রিম কোর্ট, তার যুগান্তকারী সিদ্ধান্তে ইউআইডিএআইকে অবৈধ অভিবাসীদের আধার না দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

নোটিশগুলির বিষয়ে আধার কর্তৃপক্ষকে প্রশ্ন করা হলে তাঁরা বলেন, ‘হায়দরাবাদে আমাদের আঞ্চলিক অফিসে হায়দরাবাদ পুলিশের কাছ থেকে খবর আসে যে ১২৭ জন ভুয়ো নথি দেখিয়ে আধার পেয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে পাওয়া গেছে যে আধার নম্বর পাওয়ার যোগ্য নয় এরা। তারা অবৈধ অভিবাসী। সুতরাং, আঞ্চলিক অফিস তাদের ব্যক্তিগতভাবে হাজির হতে এবং আধার নম্বর পাওয়ার জন্য তাদের দাবি প্রমাণ করার জন্য নোটিশ পাঠিয়েছে।’

এদিকে এই নোটিশের প্রাপকরা এখন নোটিশগুলিকে চ্যালেঞ্জ জানাতে হাইকোর্টে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন। ওল্ড সিটি এলাকার তালাব কাট্টার বাসিন্দা মহম্মদ সাত্তারকেও পাঠানো হয়েছে এই নোটিশ। তিনি এই বিষয়ে বলছেন যে, ‘নোটিশ লেখা যে অবৈধ ভাবে আমি আমার আধার কার্ড ইস্যু করিয়েছি। আমাকে পাঠানো নোটিশে লেখা যে ইউআইডিএআই-এর কাছে নির্দিষ্ট অভিযোগ জমা পড়েছে যে আমি ভারতীয় নই। আমি নাকি ভুয়ো নথি জমা দিয়ে এই আধার সংগ্রহ করেছি।’

মহম্মদ সাত্তার আরও জানাচ্ছেন, তাঁকে বালাপুরে ইউআইডিএআই-এর অফিসে উপস্থিত হতে বলা হয়েছে। সেখানে গিয়ে তাঁকে তাঁর নাগরিকত্বের প্রমাণ দেওয়ার জন্যে বলা হয়েছে। পাশাপাশি ইউআইডিএআই-এর তরফে সাত্তারকে হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছে যে যদি সাত্তার অফিসে না আসে তবে দফতর নিজে থেকেই পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবে।