টিডিএন বাংলা ডেস্ক : নাগরিকত্ব সংশোধন বিল নিয়ে উত্তপ্ত গোটা পূর্বোত্তর। আশির দশকে অসমের হিংসাত্মক আন্দোলনে নিহতদের পরিবারের লোকজন গণহারে শহীদ পুরস্কার ফেরত দিতে শুরু করে দিয়েছেন। বুধবার রীতিমতো মিছিল করে এসে শহীদের পরিবার ওই পুরস্কার ফেরত দিয়ে যান প্রশাসনের কর্তাদের হাতে। পরে তারা সাংবাদিকদের বলেন, বিজেপি সরকার আসামের বাসিন্দাদের উচ্ছেদের ছক কষছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল এনে।বিদেশীদের বসিয়ে দেওয়া হচ্ছে আমাদের উপর। কিছুতেই এমন হঠকারী বিল মেনে নেব না। বুধবার থেকেই রাজ্যের শাসক দল বিজেপির নেতা মন্ত্রীদের উদ্দেশ্যে বিক্ষোভ জানিয়ে যাচ্ছেন স্থানীয়রা।

১৯৮০ সালের সেই ভয়ঙ্কর আন্দোলনে অসমে অন্তত ৮৫৪ জন নিহত হয়েছিলেন। ২০১৬ সালে রাজ্যে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর এদের সবার পরিবারকে এককালীন ৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ এবং একটা স্মারক দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়েছিল। বুধবার অন্তত ৩০ জন ওই স্মারক ফেরত দিয়ে যান গুয়াহাটির ডেপুটি কমিশনারের কাছে। তাদেরই একজন রাজেন ডেকা। বলছেন, আমাদের নিজের বাসভূমিতেই আমরা এখন ছিন্নমূল হয়ে যাচ্ছি। আমাদের মান মর্যাদা ভূলুণ্ঠিত করেছে বিজেপি সরকার। মরিগাঁও জেলার দীপ্তি বোরা অসম আন্দোলনের সময় হারিয়েছেন তার নিজের ভাই পদ্ম বোরাকে। বলেন, শহীদের আত্মদানের কোন মর্যাদাই রইল না আর। আমরা কোনোভাবেই ওই নাগরিকত্ব সংশোধন বিল মেনে নেব না।

এদিকে, তিনসুকিয়া জেলার বিজেপি কর্মকর্তা লাখেশ্বর মোরানকে বুধবার অপদস্ত করেছেন বেশ কিছু ছাত্র ছাত্রী। তার বাড়ির সামনেও ধর্নায় বসে যায় বহু প্রতিবাদী। জেলার পুলিশ সুপার শিলাদিত্য জানিয়েছেন,বিজেপি জেলা সভাপতিকে মারধর করা হয়েছে। এর ফলে তার দুটি দাঁত পড়ে যায় এবং শরীরের আরো কিছু জায়গায় চোট লাগে।

নাগরিকত্ব আইন সংশোধন বিলের প্রতিবাদে এনডিএ জোট ছেড়েছে অসম গণপরিষদ।আশির দশকে এদের নেতৃত্বেই বিদেশী বিতারণ আন্দোলন শুরু হয়েছিল। বিদেশিদের চিহ্নিতকরণের জন্য গঠিত এনআরসি আসামের ৪০ লক্ষ লোকজনকে এনআরসি’র বাইরে রেখেছিল তাদের খসড়া তালিকায়।এক কথায় এদের বিদেশী বলে চিহ্নিত করা হয়েছিল। এরপরই সংসদে নাগরিকত্ব সংশোধন বিল পেশ করে যাতে বলা হয়েছে আফগানিস্তান,পাকিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আগত শরণার্থীদের মধ্যে যারা অমুসলিম অর্থাৎ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান, তাদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেয়া হবে একনাগাড়ে ভারতে ৬ বছর বসবাস করার প্রমাণ থাকলেই। এমন সংশোধনের পর অবৈধ শরণার্থীদের প্রায় সবাই ভারতের নাগরিকত্ব পেয়ে যাবে বলে অনুমান।

Advertisement
mamunschool