টিডিএন বাংলা ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশে সন্ত্রাসের রাজত্ব চলছে । শনিবার মুজফফরপুরে নাগরিকত্ব আইন – বিরোধী আন্দোলনে পুলিশি নির্যাতনের শিকারদের সঙ্গে দেখা করার পর এই অভিযোগ করলেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়ঙ্কা গান্ধী ভদ্রা। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীদের ওপর উত্তরপ্রদেশ পুলিশের নির্যাতন দেখে এ দিন কার্যত স্তম্ভিত হয়ে পড়েন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়ঙ্কা গান্ধী । তার অভিযোগ , আন্দোলনকারীদের ওপর নির্বিচারে চড়াও হয়েছে পুলিশ ।

এ দিন পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের মুজফফরপুরের রোকাইয়া পারভীনের বাড়ি যান প্রিয়ঙ্কা । গত ২০ ডিসেম্বর সিএএ – বিরোধী বিক্ষোভে শামিল হওয়ার অভিযোগে রুকাইয়ার বাড়ি তছনছ করে পুলিশ । বিক্ষোভ চলাকালে পুলিশের গুলিতে হত এবং আহতদের বাড়িতে গিয়েও খোঁজ নেন প্রিয়ঙ্কা । এ দিন মুজফফরপুরের একাধিক এলাকায় যান কংগ্রেস নেত্রী । কথা বলেন সকলের সঙ্গে । শোনেন তাদের অভাব – অভিযোগ । দেখা করেন মওলানা আসাদ হুসেইনির সঙ্গেও ।

মীনাক্ষী চকের কাছে মাদ্রাসা হজ – ই – ইলমিয়া পরিচালনা করেন আসাদ হুসেইনি । সিএ এ- বিরোধী বিক্ষোভের সময় উত্তাল হয়েছিল এই মাদ্রাসা চত্বর । পুলিশ সে সময় মাদ্রাসায় ঢুকে বেশ কয়েকজনকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল বলে অভিযোগ । এদের কেউ কেউ ছাড়া পেলেও এখনও অনেকে জেলে রয়েছেন । রেহাই পায়নি নাবালকরাও । পুলিশি নির্যাতনের শিকার হয়েছেন মওলানা আসাদ হুসেইনিও ।

তার সঙ্গে দেখা করে বেরিয়ে এসে প্রিয়ঙ্কা বলেন , পুলিশ নির্মমভাবে পিটিয়েছে মওলানাকে । সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে অংশ নিতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছিলেন নুর মহম্মদ । এ দিন তার স্ত্রী ও দেড় বছরের কন্যার সঙ্গেও দেখা করেন প্রিয়ঙ্কা ।