টিডিএন বাংলা ডেস্ক: এনআরসি হিন্দুদের জন্য অভিশাপ আর মুসলিমদের জন্য আশীর্বাদ’ শিলচরের বিজেপি বিধায়ক দিলীপ কুমার পালের এই মন্তব্য গত কয়েক দিন ধরে সারা রাজ্যে তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি করেছে। এতে কঠোর সমালােচনার মুখে পড়েছেন শিলচরের বিধায়ক। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সংগঠন, রাজনৈতিক নেতা দিলীপ পালের নিন্দায় মুখর।

একইভাবে দিলীপবাবুর মন্তব্যের কড়া ভাষায় জবাব দিয়েছেন কাটিগড়ার প্রাক্তন বিধায়ক আতাউর রহমান মাঝারভূঁইয়া। বিধায়ক দিলীপ পালের বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন আতাউর। তাঁর কথায়, যে সময় বাঙালিদের ঐক্যের প্রয়ােজন তখন দিলীপ পাল বিভাজনের রাজনীতিতে মেতে ওঠেছেন ভােটব্যাঙ্কের অঙ্ক মাথায় রেখে। তিনি আগুন নিয়ে খেলা করছেন ক্ষমতার মােহে।

দিলীপ পালকে অত্যন্ত নিচ মানসিকতার ব্যক্তি হিসেবে উল্লেখ করে আতাউর চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেছেন, ‘অসমে কোথায় এক কোটি বাংলাদেশি মুসলিম রয়েছে তা প্রমাণ করুন দিলীপ পাল’। নইলে বিধায়ক পদ ছাড়ুন। মুসলিমদের নিয়ে
অপমানজনক মন্তব্য প্রত্যাহার করতে দিলীপ পালকে পরামর্শ দিয়েছেন আতাউর। বলেছেন , এনআরসি যদি হিন্দুদের জন্য অভিশাপ হয় তা হলে এর জন্য বিধায়ক দিলীপ পাল নিজেও পুরােপুরি দায়ী।এনআরসি যাতে অভিশাপ না হয় এর জন্য দিলীপ পাল কী ভূমিকা পালন করেছেন? প্রশ্ন তুলেছেন আতাউর।

প্রাক্তন বিধায়ক বলেছেন, এনআরসি মুসলিমদের জন্য কোনও অবস্থাতেই আশীর্বাদ নয়। কারণ যে সব মুসলিম তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন তারা প্রকৃত ভারতীয়। আর যে সব মুসলিমদের বাদ দেওয়া হয়েছে তারাও প্রকৃত ভারতীয়। সুতরাং এনআরসি মুসলিমদের জন্য আশীর্বাদ নয়।

এ অবস্থায় বিভাজনের রাজনীতিতে মেতে না ওঠে ঐক্যবদ্ধভাবে বিপন্ন মানুষদের পাশে দাঁড়াতে দিলীপ পালকে আহ্বান জানিয়েছেন আতাউর। একই সঙ্গে বাঙালি ঐক্যের স্বার্থেও কাজ করতে দিলীপ পালকে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।বলেছেন, যে সব হিন্দু – মুসলিম এনআরসির তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন তাদের পাশে সবাই রয়েছেন।