Rape

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সিনেমা বা মহাভারতের কোনো পৌরাণিক কাহিনী নয়। এবার যোগীরাজ‍্যে বাস্তবে যা ঘটল তা হতবাক পুরোদেশ। যার কারণে হয়তো স্ত্রী জাতি মনে পুরুষ জাতির বিরুদ্ধে হিংসা, বিদ্বেষ শুধু নয় একপ্রকার ঘৃণাও সৃষ্টি হতে পারে। প্রশ্ন উঠতে পারে, সমাজ কোন দিকে ধাবমান হচ্ছে? তবে কি সমাজের মূল‍্যবোধ ধীরে ধীরে পতিত হচ্ছে? মেয়েরা কাকে ভরসা করবে? এযুগে তবে কি নিজের স্বামীকেও চোখ বন্ধ করে ভরসা করা যাবেনা?উত্তরপ্রদেশের স্ত্রীকে জুয়ায় বাজি ধরে পরাজিত হলেন এক মদ‍্যপ স্বামী। তার পর বিজয়ী বন্ধুদের স্ত্রীকে ধর্ষণ করতে দিলেন তিনি নিজেই।

এমন মর্মান্তিক ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যের জৌনপুরে। মদ্যপ অবস্থায় জুয়ার নেশা যে কতটা ভয়ংকর হতে পারে, তা আরও একবার প্রমাণিত। এক ব্যক্তি মদ্যপ অবস্থায় বন্ধুদের সঙ্গে জুয়ায় মত্ত ছিলেন। মদের নেশায় প্রায় সর্বস্ব খুইয়ে শেষমেশ স্ত্রীকেই বাজি ধরে বসেন তিনি। শর্ত ছিল, জুয়ায় হারলে বন্ধুরা তাঁর স্ত্রীকে গণধর্ষণ করবে। নেশাগ্রস্ত অবস্থায় এই শর্তেই রাজি হয়ে যান ব্যক্তি। তারপরই জুয়ায় হারেন তিনি। ফলস্বরূপ, স্বামীর বন্ধুদের হাতে গণধর্ষণের শিকার হন মহিলা।

মহিলার অভিযোগ, তাঁর স্বামীর বন্ধু অরুণ ও আত্মীয় অনিল প্রায়ই মদ্যপ অবস্থায় তাঁদের বাড়িতে জুয়া খেলতে আসে। একদিন তাদের কাছে মহিলাকেই বাজি ধরেন স্বামী। জুয়ার আসরে হারের পরই ওই দু’জন তাঁকে ধর্ষণ করেন। ঘটনার পরই নিজের মামার বাড়ি চলে যান মহিলা। স্ত্রীর কাছে ক্ষমা চেয়ে তাঁকে ফিরিয়ে আনতে সেখানে পৌঁছন ব্যক্তি। স্বামীর কথা শুনে শ্বশুরবাড়ি ফিরতে রাজিও হয়ে যান মহিলা। কিন্তু মাঝরাস্তায় গাড়ি থামিয়ে ফের বন্ধুদের দিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ করায় ব্যক্তি। ঘটনার পর নিজেই থানায় অভিযোগ জানাতে যান তিনি। কিন্তু পুলিশ তাঁর অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে। এমন পরিস্থিতিতে স্বাভাবিকভাবেই মুষড়ে পড়েছিলেন তিনি। কিন্তু হাল ছাড়েননি। আদালতের দ্বারস্থ হন তিনি। আদালতের নির্দেশে শেষমেশ জৌনপুর জেলার জাফারাবাদ থানার পুলিশ নির্যাতিতার অভিযোগ নেয়। অভিযোগ দায়ের করে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। কিন্তু এ যুগে যে স্বামীকেও চোখ বন্ধ করে ভরসা করা সম্ভব নয়, এঘটনায় তা-ই স্পষ্ট হয়ে গেল।