টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দীর্ঘ রোগভোগ নিয়ে মৃত্যু বরণ করলেন কিংবদন্তী ফুটবলার পিকে ব্যানার্জি। দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন পিকে ব্যানার্জি। কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। অবশেষে ৮৩ বছর বয়সে শুক্রবার বেলা ১২টা বেজে ৩০ মিনিট নাগাদ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন প্রাক্তন ফুটবলার।

দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। দেহের একাধিক অঙ্গ অকেজো হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি তিনি নিউমোনিয়াতেও ভুগছিলেন। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটছিল। দেখা দিয়েছিল হৃৎপিণ্ড জনিত সমস্যাও। ক্রমেই শারীরিক অবস্থা অবনতির দিকে যাচ্ছিল। রক্ত দেওয়া হলেও ইতিবাচক বার্তা দিতে পারেননি বিশেষজ্ঞ এবং চিকিৎসকেরা।

ফুটবলার হিসেবে ইস্টার্ন রেলের জার্সি গায়ে সকলের প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন পিকে ব্যানার্জি। তাঁর আমলেই ১৯৫৮ সালে কলকাতা লিগে বিজয়ীর শিরোপা পায় রেল। যদিও কলকাতার কোনও বড় ক্লাবে খেলেননি তিনি। তবু ফুটবলার হিসেবে তাঁর প্রাপ্তির তালিকা অতুলনীয়।

ফুটবলারের পাশাপাশি কোচ হওয়ার একাধিক স্বীকৃতিও পেয়েছেন পিকে বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ ১৯৬১-তে অর্জুন পান, ১৯৯০ সালে পদ্মশ্রী পান তিনি। ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব ফুটবল হিস্ট্রি অন্ড স্ট্যাটিক্সের বিচারে বিংশ শতকের সেরা ফুটবলারদের তালিকায় স্থান পেয়েছেন। ২০০৪ সালে ফিফার সর্বোচ্চ সম্মান ফিফা অর্ডার অব মেরিট পান পিকে।

জাতীয় দলের কোচ হিসেবে নিযুক্ত হন ১৯৭২ সালে। তাঁর কোচিংয়েই ভারত ১৯৭২ সালের অলিম্পিক্সের কোয়ালিফাইং ম্যাচ খেলতে শুরু করে।১৯৮৬ পর্যন্ত ভারতীয় দলের কোচ ছিলেন তিনি। ১৯৯১-‘৯৭ জামশেদপুরে টাটা ফুটবল অ্যাকাডেমির কোচ ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে ক্রীড়া জগতে।