স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : দিল্লির বিপক্ষে জিতলেই প্লে অফে খেলা নিশ্চিত হত রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টের। তবে গুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচে ৭ রানে হেরে গেছে স্মিথ-ধোনিরা। আর এ হারে প্লে-অফ পর্বে খেলা অনিশ্চিতই রইলো পুনের।

দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে দিল্লি। এরপর দলের হাল ধরেন ওপেনার করুন নায়ার ও রিশাভ পান্ত। তৃতীয় উইকেট জুটিতে দুজনে যোগ করেছেন ৭৪ রান। ব্যক্তিগত ৩৬ রানে সাজঘরে ফিরেছেন পান্ত।
এরপর মারলন স্যামুয়েলসকে সঙ্গে নিয়ে জুটি বাধেন নায়ার। দুইজনে মিলে করেন ৩৪ রানের জুটি। এর মধ্যে স্যামুয়েলসের ব্যাট থেকেই আসে ২৭ রান। শেষদিকে ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মিছিলে দিল্লির স্কোরটা বড় হতে পারেনি। তবে দারুণ ব্যাটিং করে করুন নায়ার তুলে নেন চলতি আইপিএলে প্রথম হাফ সেঞ্চুরি। ৪৫ বলে ৬৪ রানের ইনিংস খেলেন এই তারকা। আর দিল্লির সংগ্রহ দাড়ায় ১৬৮ রানে।
১৬৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথম বলেই আজিঙ্কা রাহানেকে (০) ফিরিয়ে দেন জহির খান। আরেক ওপেনার রাহুল ত্রিপাঠিকেও (৭) সাজঘরে ফেরান এই তারকা। এ দুইজনের বিদায়ের পর দারুণ শুরু করেও ইনিংসটাকে লম্বা করতে পারেননি স্মিথ। ৩২ বলে ৩৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন পুনে অধিনায়ক।
দলীয় ৭৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বেশ চাপে পুনেকে চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৫১ রান যোগ করে জয়ের আশা জাগিয়ে তোলেন মনোজ তিওয়ারি ও বেন স্টোকস। তবে ৩৩ রান করে স্টোকস বিদায় নিলে ছন্দপতন ঘটে পুনের। দ্রুত সাজঘরে ফেরেন মহেন্দ্র সিং ধোনি (৫) ও ড্যান ক্রিস্টিয়ান (৩)।
জয়ের জন্য শেষ ওভারে পুনের প্রয়োজন ছিল ২৫ রান। প্রথম দুই বলে দুই ছক্কা হাঁকিয়ে নিজের হাফ সেঞ্চুরির সঙ্গে দারুণ রোমাঞ্চ ছড়িয়েছিলেন তিওয়ারি। কিন্তু পরের চার বলে আর মাত্র ৫ রান নিলে পুনের ইনিংস থামে ৭ উইকেটে ১৬১ রানে। এ হারে প্লে অফের জন্য শেষ ম্যাচের দিকে তাকিয়ে থাকতে হল পুনেকে।
এদিকে চলতি আসরে এরই মধ্যে নিশ্চিত করেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ১৩ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ১৮ পয়েন্ট। পরের স্থানে রয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। তাদের অর্জন ১৬ পয়েন্ট। সমান সংখ্যক পয়েন্ট পুনেরও। কিন্তু রান ব্যবধানে পুনের (-০.০৮৩) চেয়ে অনেক এগিয়ে কলকাতা (+০.৭২৯)। তালিকার চারে থাকা হায়দরাবাদের পয়েন্ট ১৫। আর ১৪ পয়েন্ট নিয়ে এখনো প্লে-অফের স্বপ্ন দেখছে পাঞ্জাব।