স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : কলকাতা, নাগপুর বা দিল্লী। দক্ষিণ আফ্রিকা সফর মাথায় রেখে উইকেটে ঘাস আছে সবখানেই, তবে সেসব কিছু থামাতে পারছে না বিরাট কোহলির ব্যাট। দিল্লী টেস্টের প্রথম দিনে কোহলির সঙ্গে মুরালি বিজয়ের সেঞ্চুরিতে শ্রীলঙ্কান বোলিং লাইন-আপ নিয়ে রীতিমতো ছিনিমিনি খেলেছে ভারতীয় দল।
উইকেটে ঘাসের ছোঁয়া কোহলিকে দমাতে পারেনি টসে জিতে ব্যাটিং নেওয়া থেকে। প্রথম সেশনে নিজের উইকেটটা বিলিয়ে দিয়েছেন দলে ফেরা শিখর ধাওয়ান। দিলরুয়ান পেরেরাকে সুইপ করতে গিয়েছিলেন, জুতা খুলে গেলেও ক্যাচটা ফেলেননি সুরাঙ্গা লাকমাল। এ উইকেট দিয়ে ২৫তম টেস্টে ১০০ টেস্ট উইকেট পূর্ণ হয়েছে পেরেরার, আর কোনও শ্রীলঙ্কান বোলার এ মাইলফলকে তার চেয়ে দ্রুত পৌঁছাতে পারেননি।
চেতেশ্বর পুজারা দিয়েছেন লেগস্লিপে ক্যাচ, সে ফিল্ডারটা যেন রাখা ছিল তার জন্যই। তবে শ্রীলঙ্কানদের হাসি মিলিয়ে গেছে এরপরই। কোহলি-বিজয় শ্রীলঙ্কান পেস আক্রমণ ভোঁতা করেছেন, স্পিনকে বানিয়েছেন নির্বিষ।
নিয়ন্ত্রণ, আক্রমণের পসরা সাজিয়েছিলেন দুইজন। কোহলি করেছেন টানা ৩য় ও ক্যারিয়ারের ২০তম টেস্ট সেঞ্চুরি। সেঞ্চুরির পথে ৫০০০ রানও পূর্ণ হয়েছে তার, দেশের মধ্যে ৪র্থ দ্রুততম ব্যাটসম্যান হিসেবে। আর টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি করেছেন বিজয়।
দিনে সবচেয়ে বেশি ঝড় গেছে যে লাকশান সান্দাকানের ওপর দিয়ে, তিনিই শেষবেলায় পেয়েছেন জোড়া সাফল্য। প্রথমে বিজয় নিজের মনোযোগ হারিয়ে হয়েছেন স্টাম্পড। রাহানে গুগলিতে ধোঁকা খেয়েছেন। সামনে এসে বেসামাল হয়ে পড়েছিলেন, আগের মতোই পরের কাজটা ঠিকঠাক করেছেন ডিকভেলা।
শেষ পর্যন্ত অবশ্য শ্রীলঙ্কার ঠিকঠাক হয়নি কিছুই!
৩য় টেস্ট, দিল্লী, ১ম দিন শেষে

টস-ভারত (ব্যাটিং)

ভারত ১ম ইনিংস ৩৭১/৪ (কোহলি ১৫৬*, বিজয় ১৫৫, সান্দাকান ২/১১০)