স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : অঘোষিত ‘ফাইনালে’ রূপ নেওয়া ধর্মশালা টেস্ট ফল দেখতে যাচ্ছে চতুর্থ দিনেই। ‘ক্রিকেটে শেষ বলে কিছু নেই’—এটা সরিয়ে রাখলে যে কেউ বলবে সিরিজ জয়ের ট্রফি উঠছে ভারতের হাতে। এর জন্য প্রয়োজন আর মাত্র ৮৭ রান। হাতে আছে ১০ উইকেট।

ভারতকে এমন সহজ জয়ের দরজায় নিয়ে যেতে মূল ভূমিকা রেখেছেন উমেশ যাদব, রবিচন্দ্রন অশ্বিন আর রবীন্দ্র জাদেজা। ভারতীয় দলের পেস আর স্পিন আক্রমণ একসঙ্গে ক্লিক করলে কী হয়, সেটা ভালোভাবেই টের পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। তাসের ঘরের মতো হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল তাদের ইনিংস। ১৩৭ রানে শেষ তাদের দ্বিতীয় ইনিংস। ধর্মশালা টেস্ট জিতে সিরিজ নিজেদের করে নিতে মাত্র ১০৬ রানের লক্ষ্য পেয়েছে ভারত।
অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মিছিলে সর্বোচ্চ স্কোরার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ৬০ বলে ৬ চার ও এক ছয়ে ৪৫ রান করেছেন এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। তিনটি করে উইকেট পেয়েছেন যাদব, অশ্বিন ও জাদেজা। এর আগে ভারতকে লিড এনে দিয়েছেন জাদেজা ও ঋদ্ধিমান সাহা। সপ্তম উইকেটে তাঁদের ৯৬ রানের জুটিতেই ধর্মশালা টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৩২ রানের লিড নেয় ভারতীয় দল।
জাডেযা আর ঋদ্ধিমানের প্রতিরোধ ভাঙেন কামিন্স। ভারতের ইনিংসের সর্বোচ্চ রানের জুটিটি থামে জাদেজার ফেরায়। ৯৫ বলে চারটি করে চার ও ছয়ে ৬৩ রান করেন ভারতের এই অলরাউন্ডার। এক মৌসুমে পাঁচ শ বা তার বেশি রান আর পঞ্চাশ বা তার বেশি উইকেট পাওয়া তৃতীয় ক্রিকেটারও এখন জাদেজা। ১৯৭৯-৮০ মৌসুমে এই কীর্তি প্রথম গড়েছিলেন কপিল দেব। ২০০৮-০৯ মৌসুমে তাঁর পাশে নাম লিখিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার মিচেল জনসন।
জাদেজার পর ঋদ্ধিমানকেও (৩১) ফেরান কামিন্স। এর মাঝে অবশ্য ভুবেনশ্বর কুমারকে ফেরান স্টিভ ও’কিফ। কুলদীপ যাদবকে আউট করে নিজের পঞ্চম উইকেটটি পান লায়ন। ভারতের ইনিংস থামে ৩৩২ রানে। টেস্টে লায়নের এটি ইনিংসে নবম ৫ উইকেট। (স্টার স্পোর্টস)