টিডিএন বাংলা ডেস্ক: গত রবিবার অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ ফাইনাল কে কেন্দ্র করে ভারত ও বাংলাদেশের ক্রিকেটার থেকে শুরু করে ক্রিকেট প্রেমীদের মধ্যেও ছিল টান টান উত্তেজনা। সেই উত্তেজনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয় পদ্মাপাড়ের টাইগাররা‌। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে আয়োজিত সেই বিশ্বকাপ জয়ের পর দুই দেশের ক্রিকেটাররা দ্বন্দ্ব ও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন। যার ফল স্বরূপ দুই দেশের পাঁচ ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে শাস্তি ঘোষণা করল ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি।

সূত্রের খবর, দুই দেশের শাস্তিপ্রাপ্ত ওই পাঁচজন ক্রিকেটারদের মধ্যে রয়েছেন ভারতের দুজন আকাশ সিং এবং রবি বিষ্ণয়। অপরদিকে বাংলাদেশের তিনজন তওহিদ হৃদয়, শামিম হোসেন এবং রাকিবুল হাসান। মাঠের মধ্যেই বাকযুদ্ধে লিপ্ত, ধাক্কাধাক্কি ও হাতাহাতি এবং আইসিসির কোড অব কন্ডাক্ট ভঙ্গের জন্য এদের প্রত‍্যেককে ৫ ও ৬ টি করে ডিমেরিট পয়েন্ট দেয়া হয়েছে।


বাংলাদেশের অভিষেক দাসকে আউট করার পর ‘খারাপ ভাষা ব্যবহার, অশালীন ইঙ্গিত এবং অবজ্ঞাসূচক অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে প্রতিপক্ষকে বিবাদে উস্কানি’ দেবার অভিযোগে বিষ্ণয়কে দুটি বাড়তি ডিমেরিট পয়েন্ট দিয়েছে আইসিসি। বিষ্ণয় এবারের যুব বিশ্বকাপ টুর্নামেন্টের সবোর্চ্চ উইকেট শিকারি।


শাস্তিপ্রাপ্ত খেলোয়াড়েরা অনূর্ধ্ব ১৯ কিংবা অন্য যেকোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচে যখনই অংশ নেবেন, এই সাসপেনশন পয়েন্ট প্রযোজ্য হবে।

উল্লেখ্য, বিশ্বকাপ জেতার পর যখন ভারতীয়রা হতাশ এবং বাংলাদেশীরা আনন্দ উদযাপনে ব্যস্ত তখন টিভি সম্প্রচারের ক্যামেরায় দেখা যায় দুদলের খেলোয়াড়দের হাতাহাতি ও ধাক্কাধাক্কি। সেই সময় মাঝখানে আম্পায়ারদের দেখা যায় দুদলের ক্রিকেটারদের শান্ত করতে। বিষয়টি নিয়ে সোমবার বাংলাদেশ ও ভারতের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনাও হয়।