টিডিএন বাংলা ডেস্ক: শুক্রবার অনুষ্ঠিত হতে চলেছে মহিলা টি২০ বিশ্বকাপ। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ খেলতে সিডনিতে পৌঁছল ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দল। বিশ্বকাপের আগেই অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ত্রিদেশীয় সিরিজ ভারত দাপটের সঙ্গেই শুরু করেছিল। যার ফলে ফাইনালেও পৌঁছে গিয়েছিল। যা ভারতকে বিশ্বকাপের আসরেও অনেকটাই এগিয়ে রাখছে। ভারতের সব থেকে বড় সমস্যা ধারাবাহিকতার অভাব। যা ভারতকে বার বার সমস্যায় ফেলেছে। সদ্য শেষ হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজেও সেই সমস্যাই দেখা গিয়েছে। কিন্তু ফাইনালে পৌঁছে সেই সমস্যাকে কিছুটা কাটিয়েছে বলেও ধরে নেওয়া যেতে পারে। তবে সেই সিরিজ এখন অতীত। সেখানকার ভুলগুলো শুধরেই বিশ্বকাপের আসরে নামতে চলেছে ভারত।

ভারত ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একটি করে ম্যাচ জিতেছে ও হেরেছে। ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারতে হয়েছে। যারা ছ’বারের মধ্যে রেকর্ড চারবার টি২০ বিশ্বকাপ জিতে নিয়েছে। ভারতের মিডল অর্ডারকে আরও ভালো করতে হবে। যাতে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মতো দলকে হারাতে কাজে লাগে। যা মেনে নিয়েছেন দলের তারকা ওপেনার স্মৃতি মন্ধনা। দলকে এটা নিশ্চিত করতে হবে যে মিডল অর্ডারের ধসে পড়া রুখতে হবে বিশ্বকাপের মতো আসরে। না হলে যে বিপদে পড়তে হবে সেটা গোটা দলের কাছে পরিষ্কার।

১৬ বছরের শাফালি ভর্মা ব্যাট হাতে ভারতকে যদি একটা ভালো শুরু দিয়ে দিতে পারেন তা হলে মিডল অর্ডারের উপর চাপটাও অনেকটা কমে যাবে। তিনি ছাড়াও ক্যাপ্টেন হরমনপ্রীত কাউরকে ঘিরে প্রত্যাশা রয়েছে ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে। তিনিও ধারবাহিকতার অভাবে ভুগছেন। ধরে নেওয়াই যায় দলের স্বার্থে সেই সমস্যা তিনি অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নামার আগেই শুধরে নেবেন। ভারতের বোলিং ডিপার্টমেন্ট অনেকটাই দাঁড়িয়ে রয়েছে দলের স্পিনারদের উপর, যে কারণে দলে বিচক্ষণ পেসার বলতে রয়েছে‌ন একমাত্র শিখা পাণ্ড্যে।

তিনি বলেন, ‘‘ওপেনিং বোলার হিসেবে আমি চাইব দ্রুত উইকেট তুলে নিতে। এবং সেটা বদলাবে না। প্রথম ছয় ওভারে আমরা উইকেট তুলে নিতে চেষ্টা করব। এবং ডেথ ওভারে ফিরেও সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা থাকবে।” তিনি বলেন, ‘‘আমার মনে হয়, টি২০ ম্যাচে ১৫০ ভালো রান। প্রথম ছয় ওভারে ব্যাটসম্যানরা অনেক স্বাধিনতা পায়। এবং যতটা সম্ভব রান তুলে নিতে চায়। কোচ ডব্লুভি রমন মনে করেন তাঁর দল বিশ্বকাপের অন্যতম দাবিদার।