টিডিএন বাংলা ডেস্ক : মোহাম্মদ সালাহ’র জোড়া গোলে ক্রিস্টাল প্যালেসকে নাটকীয় ম্যাচে ৪-৩ গোলে পরাজিত করে প্রিমিয়ার লিগে সাত পয়েন্ট এগিয়ে গেছে লিভারপুল। এদিকে চেলসিকে ২-০ গোলে পরাস্ত করে চতুর্থ স্থানের লড়াইয়ে নিজেদের দারুণভাবে টিকিয়ে রাখলো আর্সেনাল।

রোববার টেবিলের তলানিতে থাকা হাডার্সফিল্ড সফরে যাবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ও দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার সিটি। কিন্তু তার আগে শিরোপা দৌড়ে নিজেদের অবস্থান শক্তভাবেই ধরে রাখলো লিভারপুল। যদিও ঘরের মাঠ এনফিল্ডে জার্গেন ক্লপের দলকে প্যালেসের বেশ শক্ত প্রতিরোধের মুখে পড়তে হয়েছিল। কিন্তু ঈগলস গোলরক্ষক জুলিয়ান স্পেরোনির ভুলে লিভারপুল ঘরের মাঠে তাদের অপরাজিত থাকার রেকর্ড ৩২’এ নিয়ে গেল। ম্যাচ শেষে সালাহ’র প্রশংসা করতে ভুল করেননি ক্লপ, ‘সে সত্যিকার অর্থেই একজন বিশ্বমানের খেলোয়াড়।’

এই জয়ে ২৩ ম্যাচে লিভারপুলের সংগ্রহ গিয়ে দাঁড়ালো ৬০ পয়েন্ট। এর আগে মৌসুমের এই সময়ে রেডসের সেরা পয়েন্ট ছিল ৫৯। ১৮৯৩-৯৪ ও ১৯৮৭-৮৮ মৌসুমে ঠিক এই সময়ে লিভারপুল এই পয়েন্ট সংগ্রহ করেছিল। ক্লপ বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই ইতিবাচক থাকতে হবে। একটি ম্যাচে পরাজিত হওয়াটা খুব একটা সমস্যার নয়। কিন্তু আমাদের জয়ের ধারা ধরে রাখার লক্ষ্যেই মাঠে নামতে হবে। ৬০ পয়েন্ট নিয়ে আমরা দারুণভাবে লড়াইয়ে টিকে আছি।’

২০১৭ সালের এপ্রিলে এনফিল্ডে সর্বশেষ যে ম্যাচে লিভারপুল পরাজিত হয়েছিল তার প্রতিপক্ষ ছিল প্যালেস। কালকের ম্যাচেও ৩৪ মিনিটে আকস্মিকভাবে প্যালেসই এগিয়ে যায়। উইলফ্রিড জাহার সহায়তায় আন্দ্রোস টাউনসেন্ড লিভারপুল গোলরক্ষক এ্যালিসন বেকারকে পরাস্ত করেন। বিরতির ৬০ সেকেন্ড পর সালাহ ম্যাচে সমতা ফেরান। মৌসুমে এটি ছিল মিশরীয় তারকার ১৮তম গোল। ৫৩ মিনিটে ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার ফিরমিনো রক্ষণভাগের জটলার মধ্য থেকে লিভারপুলকে এগিয়ে দেন। ৬৫ মিনিটে জেমস টমকিন্স হেডের সাহায্যে প্যালেসের পক্ষে সমতা ফেরান। কিন্তু ম্যাচের শেষ ১০ মিনিট পুরোটাই ছিল লিভারপুলের দখলে। যদিও এতে স্পেরোনির ভূমিকায় ছিল মূখ্য। জেমস মিলনারের ক্রস নার্ভাস স্পেরোনির ভুলে সালাহ পায়ে গেলে ৭৫ মিনিটে আবারো এগিয়ে যায় লিভারপুল। দ্বিতীয় হলুদ কার্ড পেয়ে মিলনার মাঠের বাইরে চলে গেলে স্টপেজ টাইমে সাদিও মানে দলের পক্ষে চতুর্থ গোলটি করেন। দুই মিনিট পর ম্যাক মেয়ারের গোলে প্যালেস এক গোল পরিশোধ করলেও তা হার এড়াতে পারেনি।

এদিকে দিনের আরেক ম্যাচে এমিরেটস স্টেডিয়ামে হাই ভোল্টেজ ম্যাচে শেষ পর্যন্ত চেলসিকে ২-০ গোলে হার মেনে নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে। আর এই জয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জায়গা পাবার লড়াইয়ে আর্সেনাল কিছুটা হলেও নিজেদের এগিয়ে রাখলো। উনাই এমেরির দল শেষ ছয়টি লিগ ম্যাচের তিনটিতেই পরাজিত হয়েছে। কিন্তু এই জয়ে প্রথমবারের মত স্প্যানিশ ম্যানেজার সমর্থকদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন। ১৪ মিনিটে হেক্টর বেলেরিনের ক্রসে ফ্রেঞ্চ স্ট্রাইকার আলেক্সান্দ্রে লাকাজেত্তে দারুন এক গোলে আর্সেনালকে এগিয়ে দেন। ৩৮ মিনিটে লরেন্ট কোসিনলির হেড করতে গেলে কাঁধে লেগে বল জালে জড়ালে ব্যবধান দ্বিগুণ হয়। গত পাঁচটি লিগ ম্যাচে মাত্র দুটিতে জয়ী হয়েছে ব্লুজরা। ম্যাচ শেষে আর্সেনাল বস এমেরি বলেছেন, ‘এটা সত্যিই অনেক বড় জয়। এই ম্যাচে আমরা বিশেষ কিছু করে দেখাতে চেয়েছিলাম। চেলসি আমাদের থেকে ৬ পয়েন্ট এগিয়ে ছিল। সে কারণেই এই জয় অবশ্যই আমাদের সাহায্য করবে।

অন্তর্বতীকালীন কোচ ওলে গানা সুলশারের অধীনে টানা সাত ম্যাচে জয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রেখে ব্রাইটনকে ২-১ গোলে পরাজিত করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ২৭ মিনিটে পেনাল্টি থেকে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন পল পগবা। ৪২ মিনিটে ক্লাবের হয়ে ১৫০তম ম্যাচে গোল করে নিজেকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন ইংলিশ উইঙ্গার মার্কোস রাশফোর্ড। ৭২ মিনিটে পাসকাল গ্রসের গোলে ব্যবধান কমিয়েছে ব্রাইটন। প্রথম ইউনাইটেড ম্যানেজার হিসেবে টানা ছয়টি লিগ ম্যাচে জয়ের রেকর্ড গড়লেন সুলশার।

দিনের অপর ম্যাচগুলোতে সাউদাম্পটন ২-১ গোলে এভারটনকে, উলভারহ্যাম্পটন ৪-৩ গোলে লিস্টার সিটিকে, বোর্নেমাউথ ২-০ গোলে ওয়েস্ট হ্যামকে পরাজিত করেছে। ওয়াটফোর্ড ও বার্নলির মধ্যকার ম্যাচটি গোলশুন্য ড্র হয়েছে।