স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : গত পাঁচ বছরে আতলেতিকো মাদ্রিদকে হারাতে পারেনি তাদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ। লা লিগায় ২০১২ সালের ডিসেম্বরে সর্বশেষ আতলেতিকোর বিপক্ষে জয়ের মুখ দেখেছিল রিয়াল। এমন দুঃসহ স্মৃতিকে সঙ্গী করে লিগের ৩১তম ম্যাচে ঘরের মাঠে আতলেতিকোর মুখোমুখি হয়েছিলেন রোনালদো-রামোসরা।

কিন্তু এবারও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারলেন না রোনালদোরা। মাদ্রিদ ডার্বি শেষ হলো ১-১ গোলের ড্রতে। রিয়ালের হয়ে একমাত্র গোলটি করেছেন রোনালদো। অন্যদিকে আতলেতিকোর হয়ে গোল করেন গ্রিজম্যান।
ম্যাচের ১০ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত রিয়াল। কিন্তু রোনালদোর হাঁটুতে লেগে বল জালে জড়ানোর আগেই দারুণভাবে সেভ করেন আতলেতিকোর গোলকিপার।

১২ মিনিটে অ্যাসেন্সিওর শট বারে লেগে ফিরে এলে নিশ্চিত গোল বঞ্চিত হয় রিয়াল। ২০ মিনিটে রোনালদোর শট দুর্দান্ত ভঙ্গিমায় রুখে দেন ইয়ান অবলাক। ২৮ মিনিটে ভারানের একটি শটও রুখে দিয়ে রিয়ালকে গোল বঞ্চিত করেন তিনি।
বিরতি থেকে ফিরে গোলের জন্য মরিয়া হয়ে আক্রমণের পর আক্রমণ চালিয়ে যেতে থাকে রিয়াল মাদ্রিদ। ম্যাচের ৫৩ মিনিটে বেলের ক্রস থেকে ক্যারিয়ারের ৬৫০তম গোলটি করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। এটি ছিল স্প্যানিশ লিগের এবারের মৌসুমে তাঁর ২৩তম গোল। কিন্তু এই গোলের আনন্দ বেশিক্ষণ উপভোগ করতে পারেনি রিয়াল মাদ্রিদ। ৫৭ মিনিটে ডি-বক্সের ভেতরে বাঁ পায়ের দুর্দান্ত শটে রিয়াল গোলকিপার নাভাসকে পরাস্ত করেন অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান।

ম্যাচের ৬৭ মিনিটে রোনালদোকে তুলে বেনজেমাকে নামান রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান। কিন্তু তাতেও আশার আলো দেখেনি তারা। শেষ দিকে আরো কয়েকটি আক্রমণ করেও গোলের দেখা পায়নি রিয়াল শিবির।

ফলে ১-১ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাদের। ড্র করে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানেই রইল আতলেতিকো মাদ্রিদ। অন্যদিকে ৩১ ম্যাচে ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনেই অবস্থান রিয়াল মাদ্রিদের।