টিডিএন বাংলা ডেস্ক:  আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে লো স্কোরিং ম্যাচে রুদ্ধশ্বাস জয় পেল টিম ইন্ডিয়া। মহম্মদ সামির হ্যাটট্রিক এর সৌজন্যে আফগানিস্তানকে ১১ রানে পরাজিত করলো ভারতীয় দল। এদিন টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় টিম ইন্ডিয়া। আফগানিস্তানে আঁটোসাঁটো বোলিংয়ের সামনে মাত্র ২২৪ রান করতে পারে বিশ্বের সবথেকে ভালো ব্যাটিং সাইড। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বাধিক রান করেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ৬৩বলে ৬৭ রান করেন তিনি। বিরাট কোহলি ছাড়া অন্যান্য আর কোন ভারতীয় ব্যাটসম্যান সেভাবে আফগান বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতে পারেননি।


লক্ষ্যমাত্রা কম হলেও সতর্ক হয়ে মাঠে নেমেছিল আফগানিস্তান। শুরুটাও করেছিল ধীরে, কিন্তু ভারতীয় বোর্ডিং বিভাগের প্রধান অস্ত্র বুমরা সামনে পড়তেই বেকায়দায় পড়ে যায় আফগানিস্তানের ব্যাটসম্যানরা। ১০ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৩৯রান দিয়ে মহামূল্যবান দুটি উইকেট ছিনিয়ে নিয়েছেন বুমরা। ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। অন্যদিকে শেষ পর্বে জ্বলে উঠে দেশের জয় নিশ্চিত করে দিলেন সামি। ১৯৮৭ সালের পর দ্বিতীয় ভারতীয় বোলার হিসেবে বিশ্বকাপের ময়দানে পরপর তিন বলে ৩ উইকেট নেওয়ার নজির সৃষ্টি করলেন তিনি। এর আগে একমাত্র ভারতীয় হিসেবে এই রেকর্ডের অধিকারী ছিলেন চেতন শর্মা। এদিনের ম্যাচ জয়ের সঙ্গে সঙ্গে বিশ্বকাপ ক্রিকেট ইতিহাসে ৫০ তম জয়টি ছিনিয়ে নিল ভারতীয় দল।


এদিন আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে জিতলেও যথেষ্ট বেগ পেতে হয়েছে ভারতীয় দলকে। মূলত ব্যাটিং বিপর্যয়ের কারণে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে কষ্টার্জিত জয় ভারতীয় দলের। তবে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে এই জয় ভারত আরো একবার প্রমান করলো ব্যাটিং হোক কিংবা বোলিং দুই বিভাগেই বিশ্বের এই মুহূর্তে যে কোন ক্রিকেট খেলিয়ে দেশের থেকে অনেক এগিয়ে রয়েছে টিম ইন্ডিয়া।

তবে আফগানিস্তানের এই লড়াই ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীদের যে বাড়তি আনন্দ দিয়েছে সে কথা বলার অপেক্ষা রাখে না। তার কারণ আফগানিস্তানের ক্রিকেটকে উন্নত এবং আধুনিক করার পিছনে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অবদান অবিস্মরণীয়। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বহুবার বহু রকম ভাবে আফগানিস্তান ক্রিকেটকে তুলে ধরার জন্য সব রকম প্রয়াস করে গেছে।