স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : আরও একটি দুর্দান্ত জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ফিরলো সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। আসরের ৩৬তম ম্যাচে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসকে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে উইলিয়ামসন-পাঠানরা। রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাট করা দিল্লি নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৬৩ রান। জবাবে ১৯.৫ বলে ৩ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় হায়দরাবাদ।

১৬৪ রানের লক্ষ্যটাও এক সময় অনেক বড় মনে হচ্ছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের সামনে। শেষ ওভারে যখন ১৪ রান প্রয়োজন ছিল হায়দরাবাদের, এ পরিস্থিতিতে হায়দরাবাদের ব্যাটিংয়ে দুই পরীক্ষিত সৈনিক। এক পাশে অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন আর অন্য পাশে ইউসুফ পাঠান। স্ট্রাইকিং প্রান্তে থাকা ইউসুফ পাঠান প্রথম বল থেকে নেন দুই রান।

পরের বলটিই ফুল টস দিয়ে বসেন অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার ড্যানিয়েল ক্রিশ্চিয়ান। কব্জির মোচড়ে বলকে আকাশে তুলে দিলেন ইউসুফ পাঠান। সোজা গ্যালারিতে। পরের বল দিলেন বাউন্সার। তাতেও রক্ষা হলো না। পুল করলেন ইউসুফ। বল শর্ট ফাইন লেগ দিয়ে চলে গেলো বাউন্ডারির বাইরে। পরের তিন বলে দরকার ২ রান। সিঙ্গেল করে নিয়ে ১ বল হাতে থাকতেই জয়ের বন্দরে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

১৭৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা দারুণ করে স্বাগতিক দল হায়দরাবাদ। উদ্বোধনী জুটিতে ৭৬ রান যোগ করেন অ্যালেক্স হেলস ও শিখর ধাওয়ান। ৩১ বলে সর্বোচ্চ ৪৫ রান করেন হেলস। ইংলিশ এ তারকার ইনিংসে ছিল ৩টি চার ও সমান ছক্কা। ধাওয়ান করেন ৩৩। ১৭ বলে মনিশ পান্ডে ২১ রান করে আউট হয়ে গেলেও ৩০ বলে ৩২ রান করে উইলিয়ামসন আর ১২ বলে ২৭ রানের ঝড় তুলে অপরাজিত ছিলেন ইউসুফ পাঠান।

দিল্লি বোলারদের মধ্যে ২টি উইকেট পান স্পিনার অমিত মিশ্রা। একটি উইকেট তুলে নেন লিয়াম প্ল্যাঙ্কেট।

টসে জিতে এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ওপেনার পৃথ্বী শাওয়ের ৬৫ রানে ভর করে ১৬৩ রানের মাঝারিমানের সংগ্রহ পায় দিল্লি। ৩৬ বলে ৬টি চার ও ৩টি ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজিয়েছেন পৃথ্থী।দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৪ করেন অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার।

৪ ওভার বল করে ২৩ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট পান আফগানিস্তানের লেগ স্পিনার রশিদ খান। একটি উইকেট পান সিদার্থ কৌল। সাকিব ৪ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে উইকেট শূন্য থাকেন।

৯ ম্যাচ খেলে ৭ জয় ও ২ পরাজয়ে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে হায়দরাবাদ। আর ১০ ম্যাচে ৭ জয় ও ৩ হারে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে নেমে গেল চেন্নাই। অন্যদিকে হেরে যাওয়া দিল্লির আট দলের মধ্যে অবস্থান ৭-এ।