স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : আইপিএলে অনেক বছর কলকাতা নাইট রাইডার্সে (কেকেআর) একসঙ্গে খেলেছেন। নতুন টিমেও একে অপরকে সতীর্থ হিসেবে পাচ্ছেন। দু’জনই অলরাউন্ডার। একাদশে থাকা নিয়ে তাই একটা প্রতিযোগিতা থাকেই। কিন্ত বাংলাদেশী অঅলরাউন্ডার সাকিব অাল হাসানকে প্রতিদ্বন্দ্বিতার চেয়ে ভালো সঙ্গী হিসেবেই দেখেন ইউসুফ পাঠান।

এবার সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের জার্সিতে মাঠে নামবেন সাকিব ও ইউসুফ পাঠান। দু’জনই কলকাতার হয়ে দু’বার শিরোপা জিতেছেন। কেকেআরে নাম লেখানোর আগে ২০০৮ সালে উদ্বোধনী আসরের চ্যাম্পিয়ন রাজস্থান রয়্যালসের অবিচ্ছেদ্দ অংশ ছিলেন পাঠান।

সাত বছর কেকেআরে কাটিয়ে সানরাইজার্সের হয়ে নতুন মিশনে নামছেন ৩৫ বছর বয়সী পাঠান। সাকিবও বিগত ৭ বছরে কলকাতার ঘরের ছেলে হয়ে গিয়েছিলেন।

আইপিএলের ১১তম আসর সামনে রেখে ‘এনডিটিভি’তে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সাত বছরের কেকেআর অধ্যায়, ভারতীয় দলে প্রত্যাবর্তন ও নতুন টিম সানরাইজার্সকে নিয়ে নিজের পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন পাঠান।

দলে অলরাউন্ডার হিসেবে সাকিবের সঙ্গে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখছেন কিনা এমন প্রশ্নে পাঠানের প্রতিক্রিয়া, ‘সাকিব ভালো বন্ধু এবং গ্রেট অলরাউন্ডার। আমরা কেকেআর টিমেও একসঙ্গে খেলেছি। তাই তাকে আমি প্রতিযোগিতার চেয়ে একজন সহচর হিসেবে বিবেচনা করি। একত্রেই দলের সাফল্যের জন্য অবদান রাখতে মুখিয়ে আছি।’

সাকিব-পাঠান ছাড়াও হায়দরাবাদ টিমে অলরাউন্ডার তালিকায় আছেন কার্লোস ব্রাথওয়েট, মোহাম্মদ নবী, ক্রিস জর্ডান, দিপক হুদা, বিপুল শর্মা, মেহেদী হাসান (ভারত)।

আগামী সোমবার (৯ এপ্রিল) নিজেদের প্রথম ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালসের মোকাবিলা করবে সাকিব-পাঠানের সানরাইজার্স। ডেভিড ওয়ার্নারের পরিবর্তে ২০১৬ আসরের চ্যাম্পিয়নদের নেতৃত্ব দেবেন কেন উইলিয়ামসন। আন্তর্জাতিক ম্যাচে বল টেম্পারিংয়ের অপরাধে নিজ দেশের বোর্ড থেকে এক বছর জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার।