টিডিএন বাংলা ডেস্ক: মারণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে এবার পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের পাশে দাঁড়ালেন প্রিন্স অফ ক্যালকাটা তথা বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। এদিন তিনি সাফ জানিয়ে দিলেন, করোনা রুখতে রাজ্য সরকার প্রয়োজনে কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্র গড়তে ইাড়েন গার্ডেন্স ব্যবহার করতে পারে। এ কাজে তারা ইডেনের ইন্ডোর ছাড়াও ব্যবহার করতে পারে ইডেনের ডুরমিটারিও। কারোনার জেরে গোটা ভারত জুড়ে এখন লকডাউন চলছে। আগামী ২১ দিনের জন্য পুরো দেশজুড়ে চলবে লকডাউন। মানুষ এখন গৃহবন্দি হয়ে রয়েছেন সর্বত্র। কারোনা ছড়িয়ে পড়লে স্বাভাবিক ভাবে প্রয়োজন হবে কোয়ারেন্টাইনের।

করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে চলতে থাকা লড়াইয়ে অনেক আগেই এগিয়ে এসেছে ক্রীড়া জগত। এবার সেই লড়াইয়ে শামিল হলেন ভারতের প্রাক্তন টেস্ট অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ও| কোয়ারেন্টাইনে জন্য প্রয়োজনে তিনি ইড্রেন গার্ডেন্সকে ব্যবহার করার প্রস্তাব দিলেন মমতা বান্দাপাধ্যায়ের সরকারকে। দেশজুড়ে বর্তমান খারাপ পরিস্থিতিতে চিকিৎসার প্রয়োজনে ইভেন গার্ডেন্স ব্যবহারের প্রস্তাব দিয়ে সেীরভ বলেন, ‘যদি আমাদের সরকার চায়, তাহলে আমরা নিশ্চিতভাবে ইড্রেনকে ব্যবহার করতে দেব। আমাদের রাজ্য সরকার চাইলে ইড্রোনের ইন্ডার এবং ডরমিটরিকে অস্থায়ী চিকিৎসা কেন্দ্র করে তুলতে পারে। এ ব্যাপারে আমরা প্রস্তুত। যদি সরকার আমাদের সঙ্গে কথা বলে, তাহলে আমরা ইডেনে সমস্ত রকম সুযোগ-সুবিধা উজাড় করে দেব। এ নিয়ে কোনও সমস্যা হবে না।

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য হাওড়ার ডুমুরজোলা ইন্ডোর স্টেডিয়ামে ইতিমধ্যেই চিকিৎসা কেন্দ্র গড়ে তুলেছে রাজ্য সরকার। প্রয়োজনে তারা আরও স্টেডিয়াম নেবে বলে জানিয়েছে। বিষয়টি মাথায় রেখে ইডেন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আগাম বার্তা দিয়ে রাখলেন মহারাজ। এর আগে সেীরভ সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছিলেন, ‘এই মুহূর্তে আমরা খুব কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। প্রত্যেক রাজ্যের সরকার এবং কেন্দ্র যে নির্দেশিকা দিচ্ছে, তা সবাইকে পালন করা উচিত। এই সময় সবার বাড়িতে থাকাটা খুব জরুরি। দয়া করে বাড়িতে থাকুন। এমন ভাববেন না যে আপনার কিছু হবে না। কারণ, এটা একবার চলে এলে আর কোনও রাস্তা খোলা থাকবে না বাঁচার জন্য।’

তারপর কারানার প্রকোপে কলকাতার ফাঁকা রাস্তাঘাটের ছবি পোস্ট করে তিনি আরও লিখে ছিলেন, “ আমার শহরকে এমনভাবে দেখার কথা আগে কখনও ভাবিনি। স্টে সেফ। আমি নিশ্চিত, এই পরিস্থিতি শীঘ্রই বদলে যাবে। সব ঠিকঠাক হয়ে যাবে।’  

ভারতের ক্রমেই বাড়ছে কারোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। এই মুহূর্তে ভারতে মৃতের সংখ্যা ১৪। আক্রান্ত ৬০০ পেরিয়েছে এবং পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্তের সংখ্যা ১১। রাজ্যের এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পাশে দাড়িয়ে মহানুভবতার পরিচয় দিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। (সৌজন্য- কলম পত্রিকা)