স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : মাত্রই অস্ট্রেলিয়াকে ওয়ানডে সিরিজে উড়িয়ে দিয়েছে ভারতীয় দল। উড়তে উড়তেই তাদের মাটিতে নামিয়ে আনল নিউজিল্যান্ড। ক্যারিয়ারের ২০০তম ম্যাচে সেঞ্চুরি করে দিনটা মনে রাখার মতো করে রাখতে চেয়েছিলেন বিরাট কোহলি; কিন্তু টম ল্যাথাম আর রস টেলরের জন্য তা হয়ে গেল ভুলে যাওয়ার মতো।
ল্যাথামদের প্রতিপক্ষ শুধু কোহলিরাই তো নয়, ছিল মুম্বাইয়ের গরম আর আর্দ্রতাও। ম্যাচের শুরু থেকেই দুই দলই হাঁসফাঁস করেছে, তবে অচেনা কন্ডিশনে হওয়ায় চ্যালেঞ্জটা কিউইদেরই ছিল বেশি। সেই পরীক্ষায় তারা ভালোমতোই উতরে গেছে। টসে জিতে ভারত ব্যাট করতে নামার পর শুরুতেই খায় হোঁচট, ১৬ রানেই বোল্টের বলে আউট শিখর ধাওয়ান। ২৯ রানের মাথায় আবার বোল্টের আঘাত, এবার শিকার রোহিত শর্মা। অন্য পাশে সাউদি খরুচে হলেও বোল্টের বলে জেরবার হচ্ছিল ভারতীয় দল। ৭১ রানে যখন কেদার যাদবও ফিরে গেলেন, একটু বিপদেই পড়ে গেল কোহলিরা।
সেখান থেকে একজনই তাদের টেনে তুলতে পারতেন। উপলক্ষও ছিল যুতসই, অধিনায়ক হিসেবে নিজের ২০০তম ওয়ানডে ম্যাচ। শুরুতে দীনেশ কার্তিককে নিয়ে ৭৩ রানের জুটিতে সামাল দিলেন ধস। এরপর বাকিরা কেউ খুব বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে না পারলেও কোহলি একাই চালিয়ে গেছেন লড়াই। ধোনির সঙ্গে ৬৪ রানের জুটিটা যখন ৪১তম ওভারে ভাঙে, ভারতের রান তখন ২০১।
সেখান থেকে শেষ ৯ ওভারে হলো ৭৯ রান। কোহলি পেলেন সেঞ্চুরি, শেষ ওভারে যখন আউট হলেন, তখন নামের পাশে ১২৫ বলে ১২১ রান। ভারতের হয়ে এখন ৩১টি সেঞ্চুরি, সামনে কেবল শচীন টেন্ডুলকার। কিন্তু কে জানত, ম্যাচ জেতানোর জন্য তা যথেষ্ট হবে না?
 
শুরুতে অবশ্য তেমন আভাস ছিল না। দুই ওপেনার ৪৮ রানের জুটি গড়ার পর নিউজিল্যান্ড সবচেয়ে বড় ধাক্কা খায় ৬২ রানের সময়, ৬ রান করে ফিরে যান কেন উইলিয়ামসন। ৮০ রানে গাপটিলও আউট হলে টেলরের সঙ্গে জুটি বাঁধেন মিডল অর্ডারে নেমে আসা ল্যাথাম। দুজন ছাড়ার পর ছেড়েছেন, আর সুযোগ পেলেই স্পিনারদের সুইপ করেছেন। এর মধ্যেই গরম আর আর্দ্রতায় দুজন ভুগেছেন, জল পানের বিরতিও নিতে হয়েছে কয়েক বার। তবে একটু একটু করে ম্যাচটা নিয়েছেন নিজেদের মুঠোয়। ২০০ রানের জুটিটা ভেঙেছে টেলরের ৯৫ রানের আউটে, তবে তার আগে ল্যাথামের সেঞ্চুরি আর ভারতের সঙ্গে নিউজিল্যান্ডের ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ জুটি হয়ে গেছে। তার চেয়েও বড় কথা, দুজন বার্তা দিয়েছেন সিরিজের বাকি দুই ম্যাচও হবে দারুণ জমজমাট।
ভারত : ৫০ ওভারে ২৮০/৮ (কোহলি ১২১, কার্তিক ৩৭; বোল্ট ৪/৩৫)
নিউজিল্যান্ড : ৪৯ ওভারে ২৮৪/৪ ( ল্যাথাম ১০৩*, টেলর ৯৫ ; পান্ডিয়া ১/৪৬)
ফলঃ নিউজিল্যান্ড ৬ উইকেটে জয়ী