টিডিএন বাংলা ডেস্ক: এনআরএসের মৃত্যু হয়েছে এক করোনা আক্রান্ত রোগীর। আর তাঁর জেরে সেই রোগীর সংস্পর্শে আসা ৬৪ জন চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মী কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হল। এদের প্রতেককেরই করোনা পরীক্ষা করানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জানাগেছে, ৬৪ জনের মধ্যে ৩৯ জন চিকিৎসক, বাকিরা স্বাস্থ্যকর্মী। আপাতত জীবাণুমুক্ত করার জন্য বন্ধ করা হলো এনআরএসের সিসিইউ ও পুরুষ মেডিসিন বিভাগ। এবিষয়ে চিকিৎসক কুনাল সরকার বলেন, চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা অনেক দ্বিগুনের বেশি।

কেন আগাম সতর্কতা নিয়ে ওই রোগীকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হল না? এনআরএসের রোগীকল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান, তথা সাংসদ-চিকিৎসক শান্তনু সেন বলেন, ‘গোড়ায় ওই রোগীর মধ্যে করোনার কোনও উপসর্গ ছিল না। তাই ওঁকে জেনারেল ওয়ার্ডে রাখা হয়েছিল। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় সিসিইউ-তে স্থানান্তর করা হয়। পরে উপসর্গ প্রকট হওয়ায় তাঁর নমুনা পাঠানো হয় করোনা পরীক্ষার জন্য। তার রিপোর্ট আসতে বোঝা যায়, তিনি পজিটিভ ছিলেন।’ শান্তনু জানান, এর পর আর ঝুঁকি নেওয়া হয়নি। ওই রোগীর সংস্পর্শে আসা ৬৫ জন চিকিৎসক ও নার্সকে তড়িঘড়ি রবিবার বিকেলে কোয়ারানটিনে পাঠানো হয়।