দেশকে 'লিঞ্চিংস্থান' থেকে রক্ষার দাবি

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: পিটিয়ে মেরে দেশকে ‘লিঞ্চিংস্থান‘ করতে চাইছে এক শ্রেণীর লোক, এমনটাই অভিযোগ ছাত্র সংগঠন এসআইও-র। বৃহস্পতিবার ঝাড়খণ্ডের তাবরেজ আনসারী ও ক্যানিং-কলকাতা লোকাল ট্রেনে আক্রান্তদের পাশে দাঁড়িয়ে দোষীদের শাস্তির দাবিতে ধর্মতলার ওয়াই চ্যানেলে মানব বন্ধন করে স্টুডেন্ট ইসলামিক অর্গানাইজেশন অফ ইন্ডিয়া পশ্চিমবঙ্গ শাখা।

আরও পড়ুন – টিডিএন বাংলা সহ মিডিয়ার লাগাতার খবরের জের, ট্রেনে আক্রান্ত মাদ্রাসা শিক্ষককে ফোন মুখ্যমন্ত্রীর, ৫০ হাজার টাকা সাহায্যের আশ্বাস

ধৰ্মতলার ওয়াই চ্যানেলে মানব বন্ধন ছাত্র সংগঠন এসআইও-র

ওই মানব বন্ধনে আন্দোলনকারীদের হাতে যে প্ল্যাকার্ড ছিল তাতে ‘লিঞ্চিংস্থান’ নিয়ে সরব হতে দেখা যায়। সংগঠনটির বলছে, দেশকে গণহত্যার দেশ হতে দেওয়া হবেনা।

আরও পড়ুন – জয়শ্রীরাম না বলায় খাস কলকাতায় ট্রেনে মাদ্রাসা শিক্ষকের উপর হামলা, ৬ দিন পরেও গ্রেফতার হয়নি কেউ!

এদিন সংগঠনটির রাজ্য সভাপতি ওসমান গনি ঝাড়খণ্ডকলকাতার ট্রেনের ঘটনার নিন্দা করে বলেন, “আমরা এই দুটি ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্ত চাই।’

আরও পড়ুন – জয়শ্রীরাম বলিয়ে ঝাড়খণ্ডে খুন মুসলিম যুবক, দেশজুড়ে সমালোচনা, গ্রেফতার ১১

তিনি আরও বলেন,’বর্তমানে সারা দেশে ‘জয় শ্রী রাম’-এর নামে পিটিয়ে হত্যা অতি সাধারন ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গের বুকেও এই ধর্মীয় উগ্রতা ছড়িয়ে পড়ছে।

আরও পড়ুন – কলকাতায় ট্রেনে মুসলিমদের জোর করে জয়শ্রীরাম বলানোর চেষ্টা ও হামলার নিন্দা দিলীপ ঘোষের

ঝাড়খণ্ডের তাবরেজ আনসারীকে হত্যা কোন বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয় বরং উগ্র হিন্দুত্ববাদের অংশ। তিনি আরও বলেন, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বারংবার ঘটে চলা ‘মব লিঞ্চিং’-এ জড়িত দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না দেওয়ার জন্য এই অপরাধ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই কেন্দ্র সরকারের উচিত কঠোর আইন তৈরি করে এই ঘটনা রোধ করা”।