টিডিএন বাংলা ডেস্ক: পুরসভার বকেয়া আদায়ের দাবিতে রাস্তায় সপার্ষদ ধর্নায় বসেন শিলিগুড়ির মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। বিরোধী পরিচালিত শিলিগুড়ি পুরবোর্ডের বিরুদ্ধে রাজ্য সরকার ‘অর্থনৈতিক অবরোধ’ তৈরি করেছে, এই অভিযোগে ধর্নায় সামিল হন কংগ্রেস বিধায়কেরাও। রাজ্য সরকার কর্ণপাত না করলে বৃহত্তর আন্দোলনে যাওয়ার হুমকি দেন শিলিগুড়ির মেয়র। অবশেষে জট খুলতে আসরে ফিরবাদ হাকিম। প্রকাশ্যে অশোকবাবুদের ধর্নাকে গুরুত্ব দিতে না চাইলেও শিলিগুড়ির কাউন্সিলরদের সঙ্গে বৈঠকে পুরমন্ত্রী শেষ পর্যন্ত  কিছু বকেয়া মঞ্জুর করার সুবজ সঙ্কেত দিয়েছেন বলেই বাম সূত্রের দাবি। রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সঙ্গে দেখা করেও ‘বঞ্চনা’র কথা জানিয়ে এসেছেন বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী, মেয়র অশোক ভট্টাচার্য-সহ বাম কাউন্সিলরেরা।

মেট্রো চ্যানেলে শুক্রবার দুপুরে ধর্নায় বসেন অশোকবাবু, সিপিএমের দার্জিলিং জেলা সম্পাদক জীবেশ সরকার-সহ কাউন্সিলর ও অন্য নেতারা। ধর্নায় অশোকবাবু বলেন, ‘‘শিলিগুড়ির মানুষের সঙ্গে কেমন অগণতান্ত্রিক ও অসাংবিধানিক আচরণ করা হচ্ছে, রাজধানী শহরে এসে রাজ্যের মানুষকে তা জানাতে চাইছি। রাজ্য পাওনা ছাড়ছে না, কেন্দ্রের অংশের টাকাও দেওয়া হচ্ছে না। সব মিলিয়ে প্রায় ১৪০০ কোটি টাকা বকেয়া।’’

ধর্নায় সমর্থন জানাতে এসেছিলেন কংগ্রেসের তিন বিধায়ক শঙ্কর মালাকার, সুখবিলাস বর্মা ও অসিত মিত্র।