টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দেশের বুকে একের পর এক ঘতেই চলেছে জাতি বৈষম্যের ঘটনা। ধীরে ধীরে বর্বরতা বাড়ছে। যেখানে সেখানে সংখ্যালঘু ও দলিতদের মারধর করা হচ্ছে। কখনও বা আবার হত্যাও করা হচ্ছে। ফের একটি জাতি বৈষম্যের ঘটনার সাক্ষী থাকল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর রাজ্য গুজরাত। গুজরাটে উচ্চবর্ণের লোকেদের চেয়ারে বসায় ১৪ বছরের এক দলিত কিশোরকে বেধড়ক মারধর করার ঘটনা সামনে এলো। ছেলেটির অপরাধ? সে হোটেলে উচ্চবর্ণের লোকেদের উপস্থিতিতে চেয়ারে বসেছিল।

দীসা গ্রামীণ পুলিশের দায়ের করা এফআইআর-এ বলা হয়েছে, আক্রান্ত তফশিলি সম্প্রদায়ভুক্ত ক্লাস নাইনের ছাত্র বনসকান্তা জেলার জেরদা গ্রামের বাসিন্দা। সংবিধান দিবসের দিনেই টিউশন ক্লাস থেকে ফিরছিল ছেলেটি। রাস্তায় তার পথ আটকায় দরবার সম্প্রদায়ের চারজন। তারা জিগগেস করে, ‘কোন সাহসে আমাদের উপস্থিতিতে হোটেলে চেয়ারে বসেছিলি তুই?’

এফআইআর-এ বলা হয়েছে, ‘কী হয়েছে বুঝে ওঠার আগেই ছেলেটিকে হেনস্থা করা শুরু করে ওই চারজন। ছেলেটি বাধা দিলে বেধড়ক মারধর করা হয়।’

এসসি সম্প্রদায়েরই আর এক তরুণ ওই দৃশ্য দেখে ছেলেটিকে বাঁচাতে গেলে তাকেও জাতপাত তুলে হেনস্থা করে অভিযুক্তরা। আক্রান্তরা চিত্‍‌কার শুরু করলে লোকজন জড়ো হয়ে যায়। তখনই এলাকা ছেড়ে চলে যায় অভিযুক্তরা। আক্রান্ত যুবকের বাবা জানিয়েছেন, ‘ওদের এমনভাবে পেটানো হয়েছে যে ওরা বসতে, দাঁড়াতেও পারছে না। এর আগেও এমন ঘটনা ঘটেছে। তবে কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি।’