টিডিএন বাংলা ডেস্ক: তালতলা ক্যাম্পাস থেকেই শুরু হয়েছিল আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়। কিন্তু এই ঐতিহ্যশালী বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের ভেতরে চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ। সন্ধ্যা নামলেই মদ, জুয়ার আসর শুরু হয় বলে অভিযোগ। এমনকী, ক্যাম্পাসের মেইন গেটে স্থানীয়রা গরু বেধে রাখে বলে অভিযোগ পড়ুয়াদের। আলিয়ার কিছু প্রাক্তনী ও স্থানীয়রা ওইসব ঘটনার সঙ্গে জড়িত। এমনই দাবি আলিয়ার পড়ুয়াদের।

ক্যাম্পাসের ঢিলছোড়া দূরত্ব তালতলা থানা। অথচ প্রশাসনের এ বিষয়ে কোনও ভ্রুক্ষেপই নেই বলে অভিযোগ। পাশাপাশি, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে এ ব্যাপারে জানানো হয়েছে। কিন্তু তাতে কোনও লাভ হয়নি বলে জানা গিয়েছে। একইসঙ্গে বিষয়টি নিয়ে মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে ফোন করার চেষ্টা করা হলে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি বলে খবর।

অবশ্য, পড়ুয়াদের উদাসীনতার অভিযোগ অস্বীকার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মুহাম্মদ আলি বলেন, “এ বিষয়ে ইতিমধ্যেই রাজ্যের সংখ্যালঘু দফতরে জানানো হয়েছে। তালতলা ক্যাম্পাসে এ ধরনের একাধিক সমস্যা রয়েছে। সেই সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা সংখ্যালঘু দফতরের আবেদন করেছি।” তিনি এও জানিয়েছেন, “রাতের অন্ধকারে ক্যাম্পাসে বহিরাগত প্রবেশ রুখতে এবং অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধ করতে পুলিশ-প্রশাসনের দারস্থ হব।”(সূত্র দিন দর্পন)