নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, মালঞ্চ: প্রায় দুই সপ্তাহ কেটে গেলেও আম্পান সাইক্লোনে ক্ষত বিক্ষত এলাকার মানুষের কাছে যথা যত সাহায্য পৌঁছাচ্ছে না বলে অভিযোগ করলেন পশ্চিমবঙ্গের একাধিক সমাজসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। শনিবার সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ কামরুজ্জামান, জয় ভীম ইন্ডিয়া নেটওয়ার্কের শরদিন্দু বিশ্বাস, জামাতে ইসলামী হিন্দের প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি মুহাম্মদ নুরুদ্দীন, জমিয়তে আহলে হাদিসের রাজ্য সম্পাদক আলমগীর সরদার,বিশিষ্ট সমাজসেবী মুহাম্মাদ আলী, ইমাম মুয়াজ্জিন সংগঠনের নেতা মাওলানা আখতার হোসেন, সমাজসেবী শেখ ইমতিয়াজ প্রমূখ উপদ্রুত এলাকা পরিদর্শন করেন। তাঁরা ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের হাতে কিছু খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেন। মালঞ্চ, ঝাড়খালী, লাউখালী প্রভৃতি এলাকা পরিদর্শন করে তাঁরা জানান, উপদ্রুত এলাকায় এখনও বিদ্যুৎ পৌঁছায়নি। বহু জায়গায় এখনও ফোনে যোগাযোগ করা যাচ্ছেনা। পাথর প্রতীমা, হাসনাবাদ, কাকদ্বীপ, গোসাবা প্রভৃতি এলাকায় সরকারী বা বেসরকারি উদ্যোগে মানুষের কাছে কিছু কিছু খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। কিন্তু নদী বাঁধ নির্মাণ, বা বাড়ী ঘর নির্মাণের মত কোন সাহায্য কেউ করছেনা। মৌলানা আক্তার হোসেন জানান, লগডাউনের মাঝে এই ঝড় মানুষের জীবন কে শেষ করে দিচ্ছে। সরকারকে স্থায়ী পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে।
মুহাম্মাদ নুরুদ্দীন জানান, গরীব মানুষের হাতে টাকা দরকার। বাঁশ টালি পলিথিনের বাড়ীতে এখনও মানুষ বাস করতে বাধ্য হবে কেনো। উপকূলীয় এলাকায় মানুষের জন্য সরকারের বিশেষ ভাবে ভাবতে হবে। আইলার পর বুলবুল, বুলবুলের পর আবার আম্পান এইভাবে কী মানুষ টিকতে পারে!
মুহাম্মদ কামরুজ্জামান টিডিএন বাংলাকে বলেন, মানুষ খুব কষ্টের মধ্যে আছে। সবার উচিত তাদের পাশে দাঁড়ানো। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের কাছে অনুরোধ, অসহায় মানুষের থাকার ঘর করে দিন, খাবার দিন। এর জন্য বিশেষ প্রকল্প দরকার।