ইব্রাহিম মন্ডল, টিডিএন বাংলা, টাকী : অনগ্রসর পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে রাজ্যে ধারাবাহিক ভাবে আন্দোলনের রাস্তায় থাকা সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের ৭ম রাজ্য সম্মেলন আজ শনিবার বসিরহাটের টাকীর আল হেরা মিশনে অনুষ্ঠিত হয়। রাজ্য সম্মেলন চলবে দুইদিন ধরে ২৯-৩০ ডিসেম্বর।

এদিন প্রোগ্রাম শুরু হয় কুরআন তিলাওয়াত দিয়ে, তিলাওয়াতে কুরআন পাঠ করেন সারাবাংলা ইমাম মুয়াজ্জিন এর উত্তর ২৪ পরগনা জেলা সম্পাদক। এরপর জাতীয় পতাকা উত্তলন করেন অধ্যাপক নুরুল ইসলাম। সাথে সাথে সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের পটকা উত্তলন করেন, সভায় সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক নুরুল ইসলাম। সভা পরিচালনা করেন নাজমুল আরেফীন।

সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ কামরুজ্জামান, সংসদের উচ্চকক্ষে তিন তালাক বিল পাশ হয়েছে, লোক সভাতেও তালাক বিল পাশ হয়েছে, ভারতবর্ষের স্বাধীনতা পর এটা একটা বিরলতম ঘটনা, মুসলিমদের নিজস্ব ধর্মীয় স্বাধীনতাকে উপেক্ষা করে ও অগ্রাহ্য করে এই বিল পাশ করে শরীয়তের আইনের উপর হস্তক্ষেপ করা হলো।

সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের রাজ্য সভাপতি নুরুল ইসলাম, তিনি সংগঠনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করেন, তিনি বিশেষ করে উল্লেখ করেন, পশ্চিমবঙ্গের মুসলিমরা বিজেপি শাসিত রাজ্যের চেয়ে খুব বেশি নিরাপদ নন। তারাও এ রাজ্যে দাঙ্গার শিকার হয়েছেন এবং এ সব ক্ষেত্রে ক্ষতিগ্রস্থরা ন্যায় বিচার পায়নি। এছাড়াও তিনি আরও বলেন সংরক্ষণের সুবিধা যথাযথ ভাবে মুসলিমরা পাচ্ছে না, এ ক্ষেত্রে উল্লেখ করেন প্রাইমারি শিক্ষক নিয়গের ক্ষেত্রে সরকার সংরক্ষণের নীতি মানে নি, বিশ্ববিদ্যালয় গুলি শিক্ষক নিয়গের ক্ষেত্রে ওবিসি সংরক্ষণের নীতি মানছেন না।’

সংগঠনের সহ সভাপতি মিজানুর রহমান টিডিএন বাংলার প্রতিনিধিকে জানান,”বিজেপির রথযাত্রা হলো দাঙ্গার যাত্রা। আর এভাবেই এরা দেশটাকে শেষ করতে চায়, আমরা এই নোংরা জুমলাবাজি রাজনীতি বিজেপি আর এস এস কে করতে দেব না। এই দেশটাকে আর আমরা ভাগ হতে দেবনা। কোন আসিফাকে আর খুন হতে দেবনা।’

দলিত নেতা বীরেন মহাতো সভায় সভায় বক্তব্য রাখতে যেয়ে বলেন, এ দেশ আমাদের এবং দেশ যারা পরিচালনা করছে তারা বিদেশি, আমরা ভিক্ষা চাইছি রাজনৈতিক দলের কাছে এই ভুল আমাদের শুধরাতে হবে, দেশে যদি কেউ সব থেকে বেশি রক্ত ঝরায় সেটা হচ্ছে আদিবাসী এবং মুসলিম সমাজের মানুষ। আজ স্কুল কলেজে যে ইতিহাস পড়ানো হয় সেটা ধোকা বাজির ইতিহাস। শেষে তিনি বলেন দেশ আজাদী হয়েছে দেশবাসী আজাদী পায়নি, ভোট আমাদের রাজ তোমাদের এ চলতে পারে না।’

অল ইন্ডিয়া সুন্নাত উল জামায়াতের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন সভায় বক্তব্য রাখতে যেয়ে বলেন,’আমাদেরকে সরকার পক্ষ শুধু তাড়িয়েই চলেছে তাদের স্বার্থে ব্যাবহার করছে, আমাদের এর প্রতিবাদ করতে হবে এবং এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’

প্রকাশ্য সমাবেশ শেষে উপস্থিত ইমামদেরকে জুব্বা প্রদান করা হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন, পীরজাদা মেহেরাব উদ্দিন সিদ্দিকী, আমানত ট্রাস্টের কর্ণধর জনাব শাহ আলম,বিশিষ্ট সমাজসেবী সি পি আলি বাবা হাজি , অধ্যাপক ড. নুরুল হক, কামরু চৌধুরী, অল ইন্ডিয়া সুন্নাত উল জামায়াতের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, বীরেন মহাতো।