ফারুক সেখ, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ : পিছিয়ে রয়েছে মুর্শিদাবাদ, নেই একটিও ইউনিভার্সিটি। ফলে, উচ্চ শিক্ষায় পিছোচ্ছে মুর্শিদাবাদের মানুষ। তাই টানা ২ বছর থেকে এসআইও আন্দোলন করে যাচ্ছে, কিন্তু তাও মিলেনি ইউনিভার্সিটি। তাই এবার এস আই ও এই আন্দোলনকে “ডু অর ডাই” আন্দোলনে পরিণত করেছে। আজ ১০ তারিখ থেকে ২০ তারিখ পর্যন্ত ইউনিভার্সিটি আন্দোলনের জন্য এসআইও ক্যম্পেন পরিচালনা করছে। ২১ তারিখ রয়েছে বিধানসভা অভিযান।

জনসংখ্যার দিক থেকে ভারতবর্ষের নবম জেলা হলো মুর্শিদাবাদ। আর এই মুর্শিদাবাদের আয়তনে ৫৩২৪ বর্গ কিলোমিটার। এক সময়ে এই জেলায় ঐতিহাসিক সিপাহী বিদ্রোহ হয়েছিল, আবার অবিভক্ত বাংলা-বিহার-ওড়িশার রাজধানী হিসাবেও সকলেই জানে এই মুর্শিদাবাদের নাম। তৎকালীন লর্ড ক্লাইভ এই জেলাকে ‘ভারতের লন্ডন’ বলে উল্লেখ করেছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্য আজ এই জেলা আজ মরূদ্যানে পরিণত হয়েছে। আজ স্বাধীনতার ৭০ বছর পেরিয়ে গেলেও এই জেলার কোনো ইউনিভার্সিটি নেই যার কারনে এই জেলার মানুষ বঞ্চিত হচ্ছে উচ্চশিক্ষা থেকে। পরিনত হয়েছে শ্রমিক উৎপাদনের জেলায়। তাই আজ মুর্শিদাবাদের বাসুদেবপুর এলাকার ছাত্রদের নিয়ে এক বিশাল সাইকেল র‍্যালির আয়োজন করা হয় এস আই ও’র পক্ষ থেকে।

র‍্যালিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবি নিয়ে এলাকার শত শত ছাত্র যুবরা বিভিন্ন স্লোগান দেন। র‍্যালিতে আওয়াজ তোলা হয় রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন এসআইও’র রাজ্য কমিটির সদস্য মো: আব্দুল কারিম, বাসুদেবপুর অঞ্চল সভাপতি সামিম আক্তার ছাড়াও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

অন্যদিকে একই দাবিতে মুর্শিদাবাদের রঘুনাথগঞ্জেও একটি সাইকেল র‍্যালির আয়োজন করা হয়। সেখানে সংগঠনের জেলা সভাপতি সাদিকুর রহমান, দ্বীনি মাদ্রাসা সম্পাদক আহমাদ আলি সহ ব্লক নেতৃত্ব উপস্থিত ছিলেন। আবার ক্যম্পেন কে সামনে রেখে এদিনই সামশেরগঞ্জ ব্লকের উদ্যোগে ডাকবাংলো মোড়ে একটি মানব বন্ধনের আয়োজন করে। মানব বন্ধনে উপস্থিত ছিলেন এসআইও-র প্রাক্তন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মশিউর রহমান, জেলা সভাপতি সাদিকুর রহমান, ব্লক প্রেসিডেন্ট জাহিরুল হক সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। মানব বন্ধনে অংশ নেয় এলাকার প্রায় ১০০-র অধিক শিক্ষার্থী।সেখানে মশিউর রহমান বলেন-“আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবিতে যেভাবে জেলাজুড়ে আন্দোলন করছি তা ইতিহাসে বিরল। কিন্তু পরিবর্তনের সরকার সহ পূর্বের সরকার আমাদের সাথে প্রতারণা করেছে। আমরা অবিলম্বে মুর্শিদাবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবি জানাচ্ছি।”