কৌশিক সালুই, টিডিএন বাংলা, বীরভূম: ফের বিজেপি তৃণমূল সংঘর্ষ বীরভূমে। ঘটনায় আহত দুই পক্ষের বেশ কয়েকজন রাজনৈতিক কর্মী। প্রথম সংঘর্ষ গত মঙ্গলবার রাত্রে খয়রাশোল ব্লকের লোকপুর এলাকায় এবং দ্বিতীয় সংঘর্ষ হয় বুধবার সকালে দুবরাজপুর থানার অন্তর্গত পদুমা গ্রাম পঞ্চায়েতে। বিজেপির দাবি দেওয়াল লিখন করাতে তাদের কর্মীদের কে ব্যাপক মারধর করেছে শাসক দলের কর্মীরা যদিও তৃণমূল সেই ঘটনার কথা অস্বীকার করেছে এবং জানিয়েছে তাদের কর্মীকে মারধর করে গা ঢাকা দিচ্ছে বিজেপি কর্মীরা।

বিজেপির পতাকা লাগানোকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত লোকপুর।ঘটনার সূত্রপাত গত মঙ্গলবার রাত্রে। বিজেপি কর্মীদের অভিযোগ দলীয় পতাকা লাগানোর সময় তৃণমূলের কর্মীরা বাধা দেয়। স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি অনুমতি ছাড়া জোর করে তাদের কর্মীদের বাড়িতে বিজেপির পতাকা টাঙাতে গেলে বাধা দেওয়া হয়। ২ জন তৃণমূল কর্মীকে ব্যাপক মারধর করে পালিয়ে যায় বিজেপি কর্মীরা। আহত ওই দুই কর্মীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

অন্যদিকে দুবরাজপুরের পদুমা গ্রাম পঞ্চায়েতে বসহরি গ্রামে চলছিল বিজেপির দেওয়াল লিখনের কাজ। ঠিক সেই সময় কয়েকজন তৃণমূল কর্মী অতর্কিতে হামলা চালায় বিজেপি কর্মীদের ওপর অভিযোগ। ঘটনায় ১৪ জন বিজেপি কর্মী সমর্থক জখম হয়েছে এদের মধ্যে কয়েকজন মহিলা ও কিশোরী আছে। সাতজন সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। মঙ্গলবার সকালে দেওয়াল লিখনের সময় তৃণমূলের বাইক বাহিনী এসে তাণ্ডব চালায় বলে তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি।

বিজেপি কর্মীদের লক্ষ্য করে গুলি চালায় এবং লুটপাট করে । দুবরাজপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি ভোলা মিত্র ঘটনার কথা অস্বীকার করে বলেন, “একটা ঝামেলা হয়েছে শুনেছি। তবে আমাদের ছেলেরা করেনি। কে বা কারা ঝামেলা করেছে সেটা বলতে পারবো না।” বীরভূম জেলা বিজেপি সভাপতি রামকৃষ্ণ রায় বলেন, শাসক দল তৃণমূলের পায়ের তলায় মাটি হারিয়েছে তাই তারা আমাদের কর্মীদের কে বিভিন্ন জায়গায় মারধর করছে। তৃণমূলের দুষ্কৃতীদের হাত থেকে মহিলা কিশোরীরাও বাদ যাচ্ছে না।