টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দেশজুড়ে বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির প্রতিবাদের রেশ ছড়িয়ে পড়েছে ৪৪তম আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলাতেও। শনিবার বইমেলায় এএ-এনআরসি-র বিরোধিতায় বিক্ষোভ দেখায় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। বিক্ষোভকারীদের বিক্ষোভে বন্ধ হয়ে যায় বইমেলার ৭ নম্বর গেট| বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা মেলায় পৌঁছতেই উত্তেজনা তৈরি হয়। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভরত পড়ুয়াদের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের বচসা, হাতাহাতি। ধুন্ধুমার বেধে জায় বইমেলায়। যদিও পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। বিক্ষোভকারী বেশ কয়েকজন পড়ুয়াকে আটক করেছে পুলিশ।

জানাগেছে, এদিন বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বইমেলায় বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ৭০ নম্বর ‘জনবার্তা’ স্টলে যান। রাহুল সিনহা যেতেই তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ শুরু করেন পড়ুয়ারা| সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির বিরুদ্ধে স্লোগান তুলতে থাকেন পড়ুয়ারা| বেশ কিছুক্ষণ বিক্ষোভ চলতে থাকে বইমেলা প্রাঙ্গনেই। ইতিমধ্যে ‘‌নো এনআরসি মুভমেন্ট’‌ সংগঠনের কিছু প্রতিবাদী এবং যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু পড়ুয়ারা বিজেপির স্টলের সামনে গিয়ে লিফলেট বিলি করার মাধ্যমে প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন। তারপর বচসা শুরু হয় বিজেপির সমর্থক ও পড়ুয়াদের মধ্যে। সেই বচসাই হাতাহাতির পর্যায়ে চলে যায়। গোলমাল নিয়ন্ত্রণ করার জন্য বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয় সেখানে।

পড়ুয়াদের বক্তব্য, ‘‌শান্তিপূ্র্ণভাবে স্লোগান দিচ্ছিলাম আমরা। কিন্তু আমাদের ওপর বিজেপির কর্মীরা আচমকাই হামলা চালায়।‌’‌ আপাতত বইমেলার ৭ নম্বর গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রাহুল সিনহা সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, ‘‌ছাত্ররা যাঁরা প্রতিবাদ দেখাচ্ছেন, তাঁরা আসলে লাইমলাইটে আসার চেষ্টা করছে। সেটা আমরা হতে দেব না।’‌‌‌