টিডিএন বাংলা ডেস্ক : নির্বাচনের সময়ে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) বিজেপি কারচুপি করতে পারে বলে সতর্ক করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে দলীয় বৈঠকে এমন আশঙ্কার কথা জানান তিনি। দলীয় কর্মীদের সতর্ক থাকারও নির্দেশ দিয়েছেন মমতা।

এ দিন দলীয় কর্মীদের ইভিএম এবং ভিভিপ্যাট (ভোটার ভেরিফায়েবল পেপার অডিট ট্রেল) সম্পর্কে সতর্ক করে মমতা বলেন, ‘৪০ শতাংশ ইভিএম-এ বিজেপি কারচুপি করতে পারে। ভোটিং মেশিনের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। তাই একবার নয়, তিনবার করে দেখে নিতে হবে ইভিএম।

প্রয়োজনে তিন দফায় কর্মী রেখে খেয়াল রাখতে হবে।’ ভিভিপ্যাটে খেয়াল রাখতে অতিরিক্ত কর্মী রাখার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন মমতা। প্রতিক্রিয়ায় বিজেপি নেতা রাহুল সিং বলেন, ‘এখন ৪০ শতাংশ ইভিএমে কারচুপির গল্প শোনাচ্ছেন মমতা ব্যানার্জি। আসলে তিনি ভয় পাচ্ছেন। কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট হবে।পঞ্চায়েতের মতো বুথ দখল করতে পারবেন না। তাই আগেভাগে কারচুপির গান গাইছেন।’

জাতীয় নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, প্রতিটি ইভিএম-ভিভিপ্যাট রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে তিন দফা পরীক্ষা করা হয়। প্রথমটি ‘ফার্স্ট লেভেল অফ চেকিং’ (এফএলসি), দ্বিতীয়টি ‘কমিশনিং’ আর ভোটের দিন সকালে পরীক্ষা করা হয়। প্রতি পর্বেই ‘মক পোল’ হয়। রাজ্যের বিভিন্ন জেলাতেই এখন প্রথম দফায় ইভিএম পরীক্ষার কাজ চলছে। কমিশনের ভাষায়, যা ‘এফএলসি’।

সাধারণত, এই ‘এফএলসি’ জেলা সদরে করা হয়। ‘এফএলসি’র সময়ে ইভিএমে থাকা ১৬টি বোতামেই একটি করে ভোট দিয়ে তা পরীক্ষা করা হয়। এরপরে জেলা সদরে থাকা ইভিএমের মধ্যে পাঁচ শতাংশ ইচ্ছামতো বাছতে পারেন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা।