নিজস্ব প্রতিনিধি, টিডিএন বাংলা, বর্ধমান: সকালে উঠে সংসারের সমস্ত কাজ সামলাতে হয় তাকেই। উনুনের পাশে বসে এক হাতে থাকে বই, তো অন্য হাতে ঠেলতে হয় উনুনের জ্বাল। সকালের সব কাজ মিটিয়ে তবেই স্কুল। তার ওপরে আছে দারিদ্রতা।

এত প্রতিকূলতা মাথায় নিয়েই ৯০ শতাংশের বেশি নম্বর পেয়ে সকলকে চমকে দিল দীপা ঘোষ। বর্ধমানের নবখন্ড গ্রামের বাসিন্দা দীপা এবার মাধ্যমিকে ৬৩১ নম্বর পেয়েছে। রামগোপাল পুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে পড়ছে দীপা। রীতিমত অভাবের সংসারে বড় হয়ে ওঠা দীপার এখন স্বপ্ন ডাক্তার হয়ে গরীব মানুষের চিকিৎসা করা।

কিন্তু কিভাবে মেয়ের এই স্বপ্ন পুরণ করতে করবেন ঘোষ পরিবার তা নিয়েই রাতের ঘুম উবেছে দীপার বাবা মায়ের। বাবা তারক ঘোষ দুধের ব্যবসা করে সংসারের জোয়াল টানতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন। বাবার সংগে সংসারের কাজে হাত লাগাতে হয় দীপাকেও। দীপার মা জানিয়েছেন, তাঁদের সেই সামর্থ্য কোথায় মেয়েকে ডাক্তারী পড়ানোর! যদি সরকার বা সহৃদয় কেউ সাহায্যে এগিয়ে আসেন তবেই সম্ভব তার স্বপ্ন পুরণ।