টিডিএন বাংলা ডেস্ক : শনিবার রাতে নৃশংস ভাবে খুন করা হয় নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসকে । বিধায়ক খুনে যৌথ ভাবে তদন্তে নামছে সিআইডি ও পুলিশ। নদিয়া জেলা পুলিশ ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে। সূত্রের খবর, দু-জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এরই মধ্যে ভবানি ভভন থেকে সিআইডির একটি টিম ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে। তাঁরা ঘটনাস্থলে পৌঁছেই তদন্ত শুরু করবে।

সিআইডি ও পুলিশ যৌথভাবে তদন্ত চালাবে। ঘটনাস্থলে থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে তথ্য সংগ্রহ করছে। উদ্ধার হওয়া আগ্নেয়াস্ত্রটি ফরেনসিকে পাঠানো হচ্ছে। এদিন অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে নামার পরই বিধায়ককে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়।

পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে জানকে পেরেছে, পিছন দিক থেকে প্রথম গুলি করা হয়। তারপর মৃত্যু নিশ্চিত করতে একাধিক গুলি চালানো হয়। ঝাঁঝরা করে দেওয়া হয় বিধায়কের দেহ। উল্লেখ্য, নিজের নির্বাচনী ক্ষেত্রে সরস্বতী পুজোর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন সত্যজিৎ। সেখানেই পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি করে নৃশংসভাবে খুন করা হয় তৃণমূল বিধায়ককে।

এরপর তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েও শেষরক্ষা হয়নি। চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। হাসপাতালেই রাখা হয়েছে মৃতদেহ। রবিবার তাঁরে দেহ ময়নাতদন্ত করা হবে। এই ঘটনায় অভিযোগের তির বিজেপির দিকে ছুঁড়েছে তৃণমূল। পাল্টা সেই অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপি জানিয়েছে, তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বেই এই খুন।