টিডিএন বাংলা ডেস্ক, কলকাতা : এবার বঙ্গেও বসল সাইবার ক্রাইমের থাবা। হ্যাকিংয়ের শিকার হলো পশ্চিম মেদিনীপুরের বিভিন্ন সাব স্টেশনে কম্পিউটারগুলি। সূত্রের খবর অনুযায়ী, র‍্যানসমওয়্যার নামে একটি সফটওয়্যারের মাধ্যমে ৭৫ হাজার কম্পিউটারের নিজেদের দখলে করতে সক্ষম হয়েছে হ্যাকাররা ৷ চাকরির অফার, লাকি ড্রয়ের পুরস্কার, ইনভয়েস, সিকিউরিটি ওয়ার্নিং বা জরুরি তথ্যের আদলে ম্যালওয়ার পাঠিয়ে সিস্টেম হ্যাক করেছে তারা৷ কম্পিউটার স্ক্রিনে ফুটে ওঠা বার্তা বলছে, কম্পিউটার আপনার, তথ্য আপনার। কিন্তু কোনও কিছুই আপনি ব্যবহার করতে পারবেন না।
এযাবৎকালের অন্যতম বড় সাইবার অ্যাটাকে আক্রান্ত বিশ্ব ৷ গত শুক্রবার রাতে একসঙ্গে ভারত-সহ সারাবিশ্বের ১০০ দেশে সাইবার হানা চালিয়েছে একদল হ্যাকার ৷ থাবা পড়েছে পশ্চিমবঙ্গেও। ক’দিন আগেই এব্যাপারে আশ্বস্ত করে সিআইডি জানায়, সাইবার হানা রুখে দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের। কিন্তু সোমবার সকালে পশ্চিম মেদিনীপুরের বেলদা ও নারায়ণগড়ে রাজ্য বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থার দু’টি অফিসের কম্পিউটার খুলেই চমকে ওঠেন কর্মীরা! অফিস সূত্রে জানা যাচ্ছে, দু’তিনদিন ধরে তাদের কম্পিউটারগুলোতে মেসেজ আসছিল। তাতে তারা গুরুত্ব দেননি। কিন্তু আজ ইন্টারনেটে যুক্ত কম্পিউটারগুলো আর খুলছে না। হ্যাকাররা সমস্ত নথি তাদের নিজের আয়ত্তে নিয়েছে। ফলে সমস্যায় পড়েছে বিদ্যুৎ দপ্তর। মুক্তিপণ দাবি করেছে। যেখানে বলা হচ্ছে, আপনার কম্পিউটারের ব্লক করা তথ্য যদি ফেরত চান, তাহলে মুক্তিপণ হিসেবে দিতে হবে ৩০০ ডলার। হাতে সময় মাত্র ৬ ঘণ্টা। বিষয়টি বিদ্যুৎ দফতরে জানানো হয়েছে।
বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, টাকা নেওয়ার জন্য ক্রিপটোকারেন্সি (ইন্টারনেটে পেমেন্ট নেওয়ার জন্য এক ধরনের মুদ্রা) ‘বিটকয়েন’ ব্যবহার করা হচ্ছে। যাতে কে বা কারা এর পিছনে রয়েছে তা বোঝা না যায়। সবটাই ঘটছে ইমেলের মাধ্যমে। অজানা কোনও সূত্র থেকে ইমেল আসছে। তাতে থাকছে লোভনীয় প্রস্তাব।


আমেরিকা, ব্রিটেন, রাশিয়া, স্পেন-সহ বিশ্বের প্রায় ১০০টি দেশের পর, সাইবার সন্ত্রাসের নিশানায় কি ভারতও? তাহলে কি এ দেশেও ঢুকে পড়ল র‍্যানসমওয়্যার ভাইরাস? হ্যাকাররা হানা দিল বাংলাতেও?
বেছে বেছে স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, টেলিফোনের মতো পরিষেবা ক্ষেত্রগুলোকে নিশানা করছে হ্যাকাররা। যাতে সহজে আতঙ্ক তৈরি করে মুক্তিপণ আদায় করা যায়।
এ প্রসঙ্গে বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন,চারটি অফিসের কম্পিউটার হ্যাক হয়েছে। তবে তা কীভাবে হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। কিন্তু কাজ বন্ধ হয়ে গিয়েছে এমনটা নয়। কম্পিউটারগুলিকে ভাইরাসমুক্ত করার চেষ্টা চলছে।
পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থার অফিসের এই ঘটনাকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন সাইবার বিশেষজ্ঞরা। ঘটনার পর থেকেই পরিষেবা ব্যাহত বেলদা ও নারায়ণগড়ে বিদ্যুৎ অফিসে।

(সূত্র : ইণ্ডিয়া ডট কম, এবিপি আনন্দ)