নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: কলকাতায় আসছেন দলিত নেতা চন্দ্রশেখর আজাদ, দিল্লির শাহীনবাগের দাদি বিলকিস বানু। পার্কসার্কাস মল্লিকবাজারে একটি জনসভা করবে ভারতীয় সেক্যুলার কাউন্সিল। ওই সভায় বক্তব্য দেওয়ার কথা চন্দ্রশেখর আজাদ ও দাদির। জাতিরজনক মহাত্মা গান্ধীর নাতি তুষার গান্ধী, সংবিধান প্রণেতা বাবা সাহেব ড: ভিমরাও আম্বেদকরে নাতি রাজরত্ন আম্বেদকর, সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী মেহমুদ প্রচা প্রমুখ ওইদিন উপস্থিত থাকবেন বলে সংগঠনটি জানিয়েছে। শুধু তাই নয়, ওইদিন শাহীনবাগের আন্দোলনকারীদের অনেকেই উপস্থিত থাকবেন। সিএএ, এনআরসি ও এনপিআর বিরোধী আন্দোলনকে আরও জোরদার করতেই কলকাতায় এই ধরণের সভা বলে জানা যাচ্ছে।
দিল্লির জামা মসজিদের পাশ থেকে সিএএ বিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে গ্রেফতার হন দেশের জনপ্রিয় দলিত নেতা চন্দ্রশেখর আজাদ। জেল থেকে বেরিয়েও তিনি দলিত-মুসলিম ঐক্যের আন্দোলন জোরদার করার কথা বলেন। আর দিল্লির শাহীনবাগে যে তিনজন অতি প্রবীণ দাদি শীত উপেক্ষা করে সিএএ, এনআরসি ও এনপিআর বিরোধী আন্দোলন করছেন তাদের একজন বিলকিস। গান্ধীবুড়ি মাতঙ্গিনী হাজরা যেমন সেদিন অনেকের অনুপ্রেরণা ছিলেন, আজ ওই তিন দাদির আন্দোলন দেখে লক্ষ লক্ষ যুবক উজ্জীবিত। কলকাতায় শাহীনবাগের দাদি আসার কথা শুনেই তাই অনেকে খুশি।
এদিকে গোটা রাজ্যে প্রায় ১৫ জায়গায় ধর্ণা আন্দোলন করছেন মহিলারা। দিল্লির শাহীনবাগের আদলে এখন গোটা দেশে কয়েকশো শাহীনবাগ গড়ে উঠেছে। এক আন্দোলনকারী টিডিএন বাংলাকে বলেন, শীত, জ্বর সর্দি উপেক্ষা করে মহিলারা যেভাবে দিনের পর দিন পথে বসে আন্দোলন করছে তা স্বাধীন ভারতের মানুষ খুব কম দেখেছে। মহিলাদের জেদ দেখে অনেকে অবাক হচ্ছেন। সংবিধান ও দেশ বিরোধী সিএএ, এনআরসি ও এনপিআর বাতিল না হওয়া পর্যন্ত যে আন্দোলন চলবে তা ইতিমধ্যেই প্রমাণ করে দিয়েছে নারীরা। দুই মাসের বেশি সময় বাড়ি ঘর ছেড়ে ধর্ণা দেওয়া কম কথা?’