মহঃ আসিফ আহমেদ ও সামাউল্লাহ মল্লিক, টিডিএন বাংলা, কলকাতা : ৬ ডিসেম্বর ১৯৯২। ভেঙে দেওয়া হয়েছিল বাবরি মসজিদ। বেঁধেছিল হিন্দু-মুসলিমদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা। ২০১৯ লোকসভা ভোট, আর লোকসভা ভোটে অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণ নিয়ে হিন্দুত্বের হাওয়া তুলতে চাইছে বিজেপি। সেই আবহে লোকসভা ভোটের আগে বিভিন্ন দলিত, মুসলিম, আদিবাসী ও ওবিসি সংগঠনের যৌথমঞ্চে বাবা সাহেব আম্বেদকরের চিন্তাধারা ও আদর্শকে সকল মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে আজ (বৃহস্পতিবার) শিয়ালদহ থেকে বার হয় কয়েক হাজার মানুষের বিশাল মিছিল। ড. বি আর আম্বেদকরের ৬৩তম মহাপ্রয়ান দিবস উপলক্ষে এদিন তাঁর প্রতিকৃতিতে মালা পরিয়ে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

দলিত ও আদিবাসী নেতা বীরেন মাহাতো অভিযোগ তোলেন, সারা ভারতবর্ষ জুড়ে দলিত, মুসলিম, আদিবাসীদের হত্যা করা হচ্ছে। তা আজ ভারতবর্ষে ছড়িয়ে পড়ছে। পূর্বের ইতিহাস প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, বাবরি মসজিদ ভারতবর্ষের সম্মান ছিল, সেই বাবরী মসজিদ কেন্দ্রের বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকার ও আরএসএস বাহিনীরা হত্যা করেছে।

সংবিধান বাঁচাও কমিটির পক্ষ থেকে তিনি দাবি তোলেন, বাবরি মসজিদের জায়গায় বাবরী মসজিদই হবে কখনই মন্দির নয়। দিল্লির জামে মসজিদের প্রসঙ্গ টেনে বিজেপিকে নাম না করে তিনি বলেন, বট গাছের একটা শিকড় নাকি জামে মসজিদে প্রবেশ করেছে। কিন্তু আমরা ঘুমিয়ে নেই। ওরা এক ঘাঁ মারবে আমরা একশো ঘাঁ মারবো। সত্যের পক্ষে আমরা লড়াই করতে এসেছি।

সম্প্রীতির কথা টেনে তিনি বলেন, আজকে ৬ ডিসেম্বরের পর থেকে ভারতবর্ষে প্রতিটি জায়গায় মন্দির মসজিদ থাকবে। একটাও মন্দির মসজিদকে আমরা ভাঙতে দেবনা। আর ভারতবর্ষের প্রতিটি জায়গায় মন্দির-মসজিদ নির্মাণ হবে।

এদিনের মিছিলে নেতৃত্ব দেন সারাবাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মহম্মদ কামরুজ্জামান, জামায়াতে ইসলামি হিন্দের রাজ্য সভাপতি মহম্মদ নূরুদ্দিন, দলিত ও আদিবাসী নেতা সমীর কুমার দাস, বীরেন মাহাতো, জয় ভীম নেটওয়ার্ক-এর শরদিন্দু উদ্দীপন, সুচেতা গোলদার,কাজী সাজ্জাদ হোসেন, উদার আকাশ পত্রিকার সম্পাদক ফারুক আহমেদ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।