টিডিএন বাংলা ডেস্ক : মনের মধ্যে প্রচণ্ড বিশ্বাস আর আশা নিয়ে জমি বিক্রি করে ডিএলএড করেছিলেন। কারণ শিক্ষক হওয়ার ইচ্ছাটা ছিল প্রবল বছর ২৯ এর মোকসেদুল হকের। ডিএলএড করে চাকরি পাওয়ার আশায় দিন গুনছিলেন। কিন্তু অপেক্ষা করতে করতে বেকারত্বের জ্বালায় অবশেষে জীবনের কাছে হার মানলেন মোকসেদুল। বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেন এই তরতাজা যুবক। ঘটনায় শোকের ছায়া নেয়ে এসেছে কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জের ভোটবাড়ি এলাকায়।

চাকরি না পেয়ে সম্প্রতি হতাশায় ভুগছিলেন মোকসেদুল। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে বিষ খান তিনি। গোঙানির শব্দ শুনে তাঁকে ঘর থেকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করেন পরিজনরা। নিয়ে যাওয়া হয় মেখলিগঞ্চ গ্রামীণ হাসপাতালে। সেখান থেকে জলপাইগুড়ি সুপার স্প্যেশালিটি হাসপাতালে… সেখানে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিত্সকরা।

তরতাজা ছেলেটার এহেন পরিণতিতে ভেঙে পড়েছে মোকসেদুলের পরিবার। কাকা মোস্তাফা আলি জানিয়েছেন, মেধাবি ছেলে ছিল মোকসেদুল। বাড়ির আর্থিক অবস্থা খুব খারাপ। তার পরও মন দিয়ে পড়াশুনো চালিয়ে গিয়েছিল। জমি বিক্রি করে ডিএলএড করে সে। তার পরও চাকরি পাচ্ছিল না। এর জেরে হতাশায় ভুগছিল সে। বৃহস্পতিবার রাতে বিষ খায় মোকসেদুল। আমরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলেও শেষ রক্ষা হল না। দেহটি ময়নাতদন্তের পর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।