কৌশিক সালুই, টিডিএন বাংলা, বীরভূম : কখনো গোরক্ষা বাহিনী, আবার কখনো লাভ জিহাদের অভিযোগ বা ছেলে ধরা, সারাদেশে গুজবে গণপিটুনিতে মৃত্যু হয়েছে বহু মানুষের। এছাড়া সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে বিদ্বেষ মূলক মন্তব্য ছড়ানো হচ্ছে এবং তাতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। বাংলায় যাতে অনভিপ্রেত ওই সমস্ত ঘটনা না ঘটে তার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করলো প্রশাসন। মাইকে করে পুলিশের পক্ষ থেকে সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে সতর্কতামূলক প্রচার করা হচ্ছে। বীরভূম জেলা পুলিশের উদ্যোগে সেই প্রচার কর্মসূচী শুরু হয়েছে।

কাশ্মীরে সিআরপিএফ জওয়ানদের উপর সম্প্রতি নৃশংস হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে জঙ্গিদের পক্ষ থেকে। তারপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই জঙ্গি বাহিনীর সমর্থনে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ধরনের পোস্ট করা হচ্ছে। আর এই পরিপেক্ষিতে বিভিন্ন এলাকায় মারধোর হচ্ছে এছাড়াও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট হচ্ছে। এই ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে তার জন্য উস্কানিমূলক পোষ্ট সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে যাতে না করা হয় তার জন্য সতর্কতামূলক প্রচার করা হচ্ছে বীরভূম জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে।

ইতিমধ্যেই মাইকে সেই প্রচার শুরু হয়ে গিয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে অযথা কোন বিষয় নিয়ে কারোর সঙ্গে কোন গণ্ডগোল না পাকাতে, গুজবের ঘটনায় কোথাও কোন মারামারি শুরু হলে তৎক্ষণাৎ সেটা স্থানীয় থানা বা ভিলেজ পুলিশ বা সিভিক ভলেন্টিয়ার দের কে জানানোর আবেদন করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি জেলায় ছেলেধরা গুজব উঠেছে। আর সেই গুজব কে কেন্দ্র করে যাতে কোনো সমস্যা না হয় তার জন্য মানুষকে সতর্ক করা হয়েছে।

এছাড়াও কোন গুজব অভিযোগ কে কেন্দ্র করে হিন্দু মুসলিম বা অন্যান্য কোন ধর্মের মানুষের সঙ্গে মানুষের যাতে বিভেদ না হয় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট না হয় তার জন্য মানুষকে সচেতন থাকতে বলা হয়েছে। বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বলেন, সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে উস্কানিমূলক পোস্ট বা গুজব ছড়ানো যাতে বন্ধ হয় এবং কোনভাবেই যাতে সম্প্রীতির পরিবেশ নষ্ট না হয় তার জন্য সতর্কতামূলক প্রচার করা হচ্ছে জেলা জুড়ে।