টিডিএন বাংলা ডেস্ক : দুষ্কৃতীদের আগুনে দাউ দাউ করে জ্বলছে জঙ্গলের পর জঙ্গল। কিন্তু এর পেছনের রহস্য কি, কে বা কারা আগুন লাগাচ্ছে তা এখনও উদ্ধার হয়নি।

তবে এ আগুন যে দাবালনের নয় তা নিশ্চিত করেছেন বন দফতর। পশ্চিম মেদিনীপুরের বিভিন্ন জঙ্গলে আগুন লাগিয়ে দিচ্ছে কে বা কারা। বহু ওষধি বা মূল্যবান গাছ পুড়ে যাচ্ছে। ক্ষতি হচ্ছে হাতি ও ছোট প্রাণীদেরও। আইনি ব্যবস্থা নিতে চলেছে বনদফতর। বনদফতরের দাবি, জানুয়ারির শেষ থেকে জেলার বিভিন্ন ডিভিশনে জঙ্গলে প্রচুর পাতা ঝরে পড়ে থাকে। ঝরা পাতায় আগুন লাগানোর প্রবণতা বেড়েছে।

জঙ্গলে অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে যাচ্ছে ওষধি বা মূল্যবান গাছ। এদিকে শাবক থাকায় হাতির দলও আগুন দেখে হিংস্র হয়ে উঠছে।ফলে লোকালয়ে হাতির দলের হামলার আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে। ক্ষতি হচ্ছে অন্য প্রাণীদেরও। মাটি পুড়ে যাওয়ায় উর্বরতাও হারাচ্ছে। শুধু তাই নয়, জঙ্গল সংলগ্ন গ্রামগুলির ঘরবাড়িতে আগুন লেগে যাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে।

কে বা কারা এ আগুন লাগাচ্ছে তা এখনও জানা যায়নি। ইতিমধ্যেই কলেজ, স্কুল, ক্লাব ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলিকে দিয়ে প্রচারও চালানো হয়েছে। তবে আগুন লাগানোর প্রবণতা কমেনি। আইনি ব্যবস্থা নিতে চলেছে বনদফতর। কয়েকদিন আগেই খড়্গপুর শহরে আইআইটির পাশে একটি জঙ্গলে আগুন লেগে আতঙ্ক তৈরি হয় ৷ দমকলের চেষ্টায় আগুন আয়ত্তে আসে। এধরনের ঘটনার নিন্দা করেছেন বনসুরক্ষা কমিটি ও জঙ্গল সংলগ্ন গ্রামের মানুষও।