টিডিএন বাংলা ডেস্ক: মার্চের মাঝামাঝি। এই সময় গরমের তীব্রতা আস্তে আস্তে বিরক্তির কারণ হতেই পারে। কিন্তু ত্রাতা বৃষ্টি। সন্ধ্যা নামতেই অঝোর বৃষ্টিতে স্নান করল তপ্ত শহর। সিক্ত হল কলকাতার মাঠ, ঘাট, রাজপথ, কিংবা এঁদোগলি।

বৃহস্পতিবার কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের কয়েক জায়গায় বৃষ্টি হয়েছে। শুক্রবার কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে আকাশ মেঘলা ছিল সারাদিন। এ দিন বিকেলে ঝোড়ো বাতাস নিয়ে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টিপাতের সতর্কতা জারি করেছিল আবহাওয়া দফতর। আবহবিদরা জানিয়েছেন, পর পর দু’টি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা রয়েছে। তাই সপ্তাহের শেষ ও নতুন সপ্তাহের শুরুতেও ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকবে। হলও তাই। আবহাওয়া দফতরের বাণী সত্যি করে বৃষ্টি নামল। এ যেন পড়ে পাওয়া চোদ্দ আনা।

এ দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা পৌঁছে যায় ৩৪.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। যা স্বাভাবিকের চেয়ে এক ডিগ্রি বেশি। মেঘের চাদরের সৌজন্যে বেড়েছে তাপমাত্রা। ফলে শিরশিরানির আর বালাই নেই, ক্রমেই গুমোট হচ্ছে রাত। রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলে পারদের বৃদ্ধি আরও বেশি। বাঁকুড়ার তাপমাত্রা উঠেছে ৩৭.৬ ডিগ্রি, যা স্বাভাবিকের চেয়ে পাঁচ ডিগ্রি বেশি। বৃষ্টির ফলে শহরের পারদ কিছুটা নামল। স্বস্তি শহরবাসীর।