টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দিল্লির জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়াদের উপরে পুলিশের নির্যাতনের এক ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে রবিবার সকালেই। এই নিয়ে সকাল থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সহ দেশজুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেই দিল্লি পুলিশের ভূমিকা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন তুলে দিয়েছে বিরোধীরা। নিন্দার ঝড় উঠেছে দেশজুড়ে। পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাচ্ছে দেখে এবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ নিজেই ব্যাট ধরলেন। ‌‌দিল্লি পুলিশ আমাদের বন্ধু, ওদের শত্রু ভাববেন না, এমনটাই বললেন অমিত শাহ।

দিল্লি পুলিশের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পুলিশকে টার্গেট করা উচিত নয়৷ নরেন্দ্র মোদির বক্তব্যকে তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘‌আমাদের বুঝতে হবে পুলিশ আমাদের নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য রয়েছে৷ সাহায্যের দরকারে পুলিশ এগিয়ে আসে৷ তারা কারও শত্রু নয়৷ শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার কাজে তারা আমাদের বন্ধু৷ সুতরাং তাদের সম্মান করতে হবে৷ আমাদের ভুললে চলবে না স্বাধীনতার সময় থেকে ৩৫,০০০ পুলিশ কর্মী দেশকে রক্ষা করতে প্রাণ দিয়েছেন৷’‌

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলতে শোনা যায়, শয়তান যারা তাদের সঙ্গে কড়াভাবে মোকাবিলা করতে পুলিশের উচিত সব সময় তৈরি থাকা। একই সঙ্গে ‘উস্কানি’ হলেও তারা যেন কখনই নিজেদের নিয়ন্ত্রণ না হারিয়ে ফেলে সেই উপদেশও দেন তিনি। বলেন, শান্ত থাকতে হবে। অমিত বলেন, পুলিশ কোনও ভুল না করেই গণ্ডগোল ছড়ানোর চেষ্টা ব্যর্থ করতে সক্ষম।

অমিতের এই বয়ান নানা কারণে বিশেষ নজর কেড়েছে ওয়াকিবহাল মহলের। কেননা এদিন সকালেই এমন এক চাঞ্চল্যকর ফুটেজ উঠে এসেছে যা দিল্লি পুলিশের ভূমিকা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন তুলে দিয়েছে। গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ায় দিল্লি পুলিশ পঠনকক্ষের ভিতরে প্রবেশ করে এবং ছাত্রদের মারধর করে। ঘটনার দু’মাস পরে এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা গেল সেই ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ। ৪৯ সেকেন্ডের ক্লিপে দেখা যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরনো পঠন কক্ষে বসে রয়েছেন পড়ুয়ারা। অকস্মাৎ সেখানে প্রবেশ করে পুলিশ। পুলিশকে লাঠি দিয়ে পড়ুয়াদের মারতে দেখা গিয়েছে ভিডিওয়।

প্রিয়াঙ্কা গান্ধী টুইট করে লেখেন, ‘‌স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং দিল্লি পুলিশ মিথ্যা বলেছিল যে তারা লাইব্রেরিতে ঢুকে ছাত্রছাত্রীদের মারধর করেনি। এই ভিডিও দেখার পরও যদি অভিযুক্ত পুলিশকর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া হয় তাহলে সরকারের মানসিকতা প্রকাশ্যে এসে যাবে।’‌