রেবাউল মন্ডল, টিডিএন বাংলা, নদীয়া : রাস্তাঘাটে দামি মোবাইল হারানো এখন সাধারণ বিষয়। বর্তমান যুগে শখের এন্ড্রয়েড ফোনটি একবার হাতছাড়া হলে ফিরে পাবার আশা খুব কম জনই করেন। শেষমেশ শুধু একটি জিডি নম্বর ছাড়া আর কিছুই জোটে না কপালে। কিন্তু এবার ব্যতিক্রম হল করিমপুরে। রাস্তায় পড়ে থাকা মোবাইল সহ দামি জিনিসপত্রের ব্যাগটি ফিরিয়ে দিয়ে সততার নজির গড়লেন করিমপুরের ব্যবসায়ী বিশ্বজিৎ সাহা।

তার বাড়ি করিমপুরের আনন্দপল্লীতে। করিমপুর বাসস্টান্ডে দীর্ঘ ত্রিশ বছর ফলের ব্যবসায়ই করে এসেছেন বাবা অসিত সাহা। বাজারে তিনি একজন সৎ ব্যবসায়ী বলেই পরিচিত। বাবার আদর্শকে শিরোধার্য করেই ব্যবসার হাল ধরেছেন বিশ্বজিৎ। সেও প্রায় সাত বছর বাবার সঙ্গ দিচ্ছেন।

রবিবার দুপুরে দামি মোবাইল সহ ব্যাগ হারানো শুনেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন অসিত সাহা। শুরু করেন খোঁজাখুঁজিও। এমনকি দুপুরে খাবারটাও খেতে যাননি তিনি। খাবির বিশ্বাস অনেক খোঁজার পর দামি মোবাইলটি না পেয়ে ঐ ফলের দোকানেই নিজের নাম ঠিকানা ও ফোন নং দিয়ে বাড়ি যান। তারপর বিকেল হতেই ঐ দোকানদার নিজেই ফোন করে ডাকেন খাবিরকে। জানান, আপনার মোবাইল সহ ব্যাগ পাওয়া গেছে, এসে নিয়ে যান।

দেরি করেনি খাবিরও। তৎক্ষণাৎ ছুট্টে যান বাজারে। বিশ্বজিৎকে মিষ্টি মুখ করিয়ে টিডিএন বাংলাকে তিনি বলেন, সমাজ থেকে সততা আজো উবে যায়নি, বিশ্বজিৎ তার জ্বলন্ত প্রমান। ব্যবসায় সততা একটি অমূল্য সম্পদ। তার ব্যবসার আরো উন্নতি হোক স্রষ্টার কাছে এটাই চাইবো।

খাবিরের হাতে তার হারানো ব্যাগ ও দামি স্যামসাং মোবাইলটি তুলে দিতে পেরে গর্ববোধ করেন বিশ্বজিতও। তিনি বলেন, মানুষ মানুষের জন্যই। লোভ লালসা মানুষকে বড় করেনা। সততাই মানুষের শ্রেষ্ঠ সম্পদ একথা আমাদের মনে রাখা উচিত।