টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সুশান রায় নামে একজন ফেসবুকে লিখেছেন একটি আবেদন। কবির সুমন তা শেয়ার করে সমর্থন জানিয়েছেন। পাঠকদের উদ্দেশ্যে সেই লেখা তুলে ধরা হল।

মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী,
আপনার উদ্যোগে আলোচনার মাধ্যমে স্বাস্থ্য পরিষেবার ক্ষেত্রে চলা অচলাবস্থা কেটে গেছে, তার জন্য আপনাকে অভিনন্দন। ৪ঠা অক্টোবর, ১৯৮৩ -র বিপরীতে আপনি ১৭ জুন,২০১৯ এ একটি গণতান্ত্রিক সমাধানের দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন। তার জন্য আপনাকে আবারো অভিনন্দন।

শুধু কয়েকটি প্রশ্ন …

মারামারি দুপক্ষের মধ্যে হলে, একপক্ষ শাস্তি পাবে কেন? জুনিয়র ডাক্তারদের বিরুদ্ধে করা FIR তোলা হবে কেন? এলিট বলে? মেধাবী বলে? আর নন এলিট , মেধাহীনরা বলির পাঁঠা কেন হবে? ক্ষমা এক পক্ষ পেলে, অন্য পক্ষ কেন পাবে না,কোনো যুক্তিতে? সরকারের নীতি “ফরগেট এন্ড ফরগিভ” হলে তার সুবিধা একপক্ষ কেন পাবে?

প্রশ্ন গুলো বা কথাগুলো আপনার কাছে বা অনেকের কাছে অবাঞ্ছিত মনে হবে, হয়তো সামাজিক মাধ্যমে অনেকেই সাংস্কৃতিক মান অনুযায়ী কুবাক্য বর্ষণ করবে!! তবুও বলছি।

১) অভিজাত, ধনী, ভদ্দরলোক সমাজের কাছে গরীব, নিম্ন বর্গ ও বর্ণের এবং সংখ্যালঘু মানুষ, কিছুটা অবমানুষ। তাই না ?

২) অনভিজাত, পড়াশুনা কম জানা বা না জানা বা মেধাহীনরা আসলে ” শূদ্র ” অর্থাৎ নীচের তলার মানুষ। ( জাতি, ধর্ম যাই হোক না কেন!!) তাই না?

৩) আপনার ,আমার বাড়ির কোনো মৃতদেহ জুনিয়র ডাক্তাররা আটকে রেখে দিলে আমরা সবাই শিক্ষিত , সুজনের মতো আচরণ করতাম তাই না ?

৪) বাস্তব অভিজ্ঞতায় জানি, সরকারী হাসপাতালে খুবই অল্প সংখ্যক চিকিৎসক ভদ্র আচরণ করেন, বাকিরা স্ট্রেসে থাকে তো, তাই ভালো আচরণ করে উঠতে ঠিক পারেন না। তাই না?

৫) পরিকাঠামো উন্নত চাই এর সঙ্গে ডাক্তারদের বিরুদ্ধে কোনো আইনী ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না , এই দাবী কেন গুরুত্ব পেল? কোনো দোষ করে না থাকলে বা শুধুই বিনাদোষে আক্রান্ত হলে, FIR হলো কি করে?

৬) ওই রাতে, গুরুতর আহত জুনিয়র ডাক্তার পরিবহ, ঠিক কি করতে ইমারজেন্সি ছেড়ে বড় রাস্তায় গিয়েছিল? এই প্রশ্ন আজ বোধহয় তোলাই যাবে না!! তাই না ?

৭) পুলিশ কেন জুনিয়র ডাক্তারদের উপর সেরাত্রে লাঠি চালাতে বাধ্য হয়েছিল, এই প্রশ্নটির সদর্থক উত্তর পাওয়া যাবে না। তাই না?

পরিশেষে বলি, যে প্রাণগুলি এই ধর্মঘটের জন্য নিবে গেল, তাদের পরিবারের সদস্যদের প্রতি কেউ একবারও কি মার্জনা চেয়েছে? চায় নি, কারণ, তারা শুধুমাত্র মেধাবী বলে? নাকি সাধারণ মানুষকে তারা মানুষ মনে করে না বলে? কোনো উত্তর পাওয়া যাবে না, জানি। কারণ, ভদ্দরলোক, মেধাবী,স্বচ্ছল, শিক্ষিত সমাজ আজ যুদ্ধ জয়ের উল্লাসে আছে।

যুদ্ধে কো ল্যাটারাল ড্যামেজ হয়েই থাকে, তাই না?