টিডিএন বাংলা ডেস্ক: তৃতীয় দফার ভোট এড়াতে পারেনি রক্তপাত, মৃত্যু। তাই চতুর্থ দফায় আরও কড়া কমিশন। পরের দফায় ৯৮ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হবে বলে ঘোষণা করল নির্বাচন কমিশন।

বিক্ষিপ্ত ঘটনা ছাড়া তৃতীয় দফার ভোট শান্তিপূর্ণ বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এই দফায় ভাগ্য নির্ধারিত হয়েছে মোট ৭৭ জন প্রার্থীর। ভোট পড়েছে মুর্শিদাবাদে ৮১.৪১%, জঙ্গিপুর ৭৮.৫৮%, মালদহ দক্ষিণ ৭৭.৪৫%, মালদহ উত্তর ৭৬.৪৩% এবং বালুরঘাটে ৮০.৯৮%।

এদিন বালিগ্রাম স্কুলে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে আহত হন ৪ জন। মারা গিয়েছেন টিয়ারুল নামে এক ব্যক্তি। আর একটি ঘটনা ঘটেছে রানিতলায়। ৬জনের বিরুদ্ধে গণ্ডগোল বাঁধানোর অভিযোগ ওঠে। ৩জনকে গ্রেফতার করা হয়। তৃতীয় ঘটনা ঘটেছে চাকডোবায়। আহত হন ৯জন। উদ্ধার হয়েছে ২টি বোমা। তদন্ত করছে কমিশন। সুজাপুরে ছাপ্পা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ খতিয়ে দেখছে কমিশন।  দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুরে সকালে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় ভোটকর্মী বাবুলাল মুর্মুর দেহ। বাবুলাল মুর্মুর স্ত্রী জানিয়েছেন, কাল রাতে ভোটের ডিউটির কথা জানিয়েছিলেন তিনি। ভয়ের কথাও জানিয়েছিলেন। বলেছিলেন, সেন্ট্রাল ফোর্স না থাকলে তিনি ডিউটি করবেন না।

চতুর্থ দফায় ভোটের নিরাপত্তায় বাহিনী আরও বাড়াতে চলেছে নির্বাচন কমিশন। আগামী দফায় ২৯ এপ্রিল ভোটগ্রহণ হতে চলেছে বহরমপুর, কৃষ্ণনগর, রানাঘাট, বর্ধমান পূর্ব, বর্ধমান-দুর্গাপুর, আসানসোল, বোলপুর ও বীরভূম। ৯৮ শতাংশ বুথেই মোতায়েন থাকবে কেন্দ্রীয় বাহিনী।