কিবরিয়া আনসারী, টিডিএন বাংলা, ডোমকল : সোমবার বিকেলে মুর্শিদাবাদের ইসলামপুরে কংগ্রেসের কর্মী সভায় দেখা দিল তুমুল উত্তেজনা। এদিনের সভায় যাওয়ার পথে কংগ্রেসের মিছিল লক্ষ্য করে বোমা, গুলি ছোঁড়ে দুস্কৃতীরা। ঘটনায় জখম হয়েছেন ৬ জন কংগ্রেস কর্মী। কংগ্রেসের দাবি, তাদের কর্মীরা মিছিল করে নলবাটার রাস্তা দিয়ে আসছিল। সেই সময় তৃনমূলের দুস্কৃতীরা তাদের মিছিল লক্ষ্য করে বোমা, গুলি ছোঁড়ে। ৫ জন কর্মীকে বেধড়ক মারধর এবং ১ জন কে গুলি করা হয়েছে বলে অভিযোগ। এদের ইসলামপুর গ্রামীন হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর মুর্শিদাবাদ মেডিকাল কলেজে স্থানান্তরিত করা হয়।

অন্যদিকে তৃনমূলের দাবি, ইসলামপুরের নলবাটায় কংগ্রেসের দূষ্কৃতীরা তৃনমূল কর্মীদের রড, লাঠি দিয়ে ৫ জন তৃনমূল কর্মীদের বেধড়ক পেটায়। তাদের নাম, ইসমাইল সেখ, রমজান সেখ, আনারুল ইসলাম, আমিরুল ইসলাম। এরা সকলেই তৃনমূলের কর্মী বলে দাবি।

এদিন কর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদ জানিয়ে করিমপুর-বহরমপুর রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দাখায় কংগ্রেসের কর্মীরা। প্রায় এক ঘন্টা ধরে চলে বিক্ষোভ। পরে অধীর রঞ্জন চৌধূরীর কথায় কর্মীরা অবরোধ তুলে নেয়।

বক্তব্য দিতে গিয়ে অধীর বাবু বলেন, কংগ্রেসের সভায় মানুষের ঢল দেখে তৃনমূল ভয় পাচ্ছে। তাই বিভিন্ন জায়গায় কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকদের আটকে দেওয়া হচ্ছে, তাদের মারধর করা হচ্ছে। এই ভাবে কংগ্রেস কে দমকানো যাবে না। মুর্শিদাবাদ কংগ্রেসের জেলা কংগ্রেসেরই আছে। যদি তৃনমূল মনে করে মারধর করে কংগ্রেস কে দমকানো যাবে। তবে কানখুলে শুনে রাখুন এই জেলায় এক ইঞ্চি জমিও ছাড়ব না।

কেন্দ্র সরকারকে তীব্র কঠাক্ষ করে অধীর চৌধূরী বলেন, বিজেপি সরকার তাজমহল কে নিয়ে রাজনীতি করছে। ইতিহাস কে মুছে ফেলতে চাইছে বিজেপি। সর্বত্র অস্থিরতা, নিরাপত্তাহীনতার বাতাবরণ তৈরী করছে বিজেপি সরকার।

অধীর চৌধূরী কে পাল্টা তোপ দেগে ডোমকলের পৌরপিতা সৌমিক হোসেন বলেন, কংগ্রেস মরে গিয়েছে, তাই ভুলভাল বকছে অধীর চৌধূরী। রাস্তায় এসে সাধারন মানুষ কে কষ্ট দিচ্ছে। এইভাবে সাধারন মানুষ কে কষ্ট দিলে অধীর চৌধূরীর বাড়ির সামনে গিয়ে পথ অবরোধ করব এবং বাড়িতে গৃহবন্দি করে রাখব বলেও হুমকি দেন সৌমিক হোসেন

এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন, জেলা কংগ্রেসের সভাপতি আবু তাহের খান, রেজিনগরের প্রাক্তন বিধায়ক হুমায়ুন কবীর, রানিনগরের বিধায়িকা ফিরোজা বেগম প্রমুখ।