নিজস্ব প্রতিবেদক, টিডিএন বাংলা, কলকাতা : আজ ১১ই নভেম্বর মৌলানা আবুল কালাম আজাদের ১৩০ তম জন্মজয়ন্তী। তিনি ছিলেন একজন স্বাধীনতা সংগ্রামী ও স্বাধীন ভারতের প্রথম শিক্ষামন্ত্রী সেই সাথে একজন ইসলামি ধর্মশাস্ত্রে সুপণ্ডিত। অল্প বয়সে তিনি ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত হন। হিন্দু-মুসলিম সম্প্রীতির প্রবক্তা ছিলেন এবং দ্বিজাতিতত্ত্বের ভিত্তিতে ভারত বিভাগের বিরোধিতাও করেছিলেন তিনি।

ফাউন্ডেশনের ডাইরেক্টর জায়েদ আনোয়ার মোহাম্মদ বলেন, মৌলানা আবুল কালাম আজাদ ছিলেন অঙ্ক, দর্শন, বিশ্ব ইতিহাস এবং বিজ্ঞানের উপর সমান দক্ষ। ছিলেন উর্দু, হিন্দি, পার্শি, আরবিক এবং হিন্দি- ৫ ভাষাতেই সমান সাবলীল। ‘সকলের জন্য শিক্ষা’ মতের প্রবক্তা ছিলেন আজাদ। এআইসিটিই এবং ইউজিসির প্রারম্ভিক পর্বে মূল দায়িত্ব ছিল তাঁর হাতেই।

এদিন তিনি আরও জানান, আইআইটি, আইআইএসসি এবং স্কুল অব আর্কিটেচার অ্যান্ড প্ল্যানিং নির্মাণও ছিল তাঁর মস্তিষ্কপ্রসূত। দেশের জাতীয়তাবাদী আন্দোলনে অংশ নিয়ে তিনি একজন দক্ষ সাংবাদিক হিসাবেও কাজ করেছেন। ১৪ বছর বয়স পর্যন্ত শিক্ষা বাধ্যতামূলক করার পক্ষে জোরালো সওয়াল করেন মৌলানা আজাদ।

আজকের এই দিনটি “জাতীয় শিক্ষা দিবস” হিসেবে সারা দেশে পালিত হয়। আজ কলকাতার মেটিয়া ব্রুজ ও নারকেল ডাঙায় তাঁর জন্ম জয়ন্তী ও “জাতীয় শিক্ষা দিবস” তার অংশ হিসেবে পালন করা হয় ক্বারী আহমার ফাউন্ডেশন এর পক্ষ থেকে। এদিন ফাউন্ডেশন এর পক্ষ থেকে ছোট্ট ছোট্ট শিশুদের হাতে পেন্সিল বক্সসহ নানান জিনিস তুলে দেওয়া হয়।