নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ: ফারাক্কার হোসেনপুর এলাকায় অব্যাহত গঙ্গা ভাঙন। একদিকে বিহার ও ঝাড়খণ্ডের প্রবল বর্ষণে গঙ্গার জলস্ফীতি বৃদ্ধি, অন্যদিকে এরই মাঝে বিষফোঁড়া হয়ে লাগাতার সপ্তাহ খানেকের নিম্নচাপ। দুইয়ের ফাঁপড়ে ভাঙনের ফলে ভিটেমাটি হারিয়ে অসহায়ত্বের জীবন কাটাচ্ছেন মুর্শিদাবাদের ফারাক্কার হোসেনপুর এলাকার হাজার হাজার মানুষ। প্রতিবছর ভাঙনের কবলে পড়ে ভিটেমাটি হারাতে হলেও কেন্দ্র সরকার কিংবা ব্যারেজ কর্তৃপক্ষ একেবারেই নিশ্চুপ। সম্প্রতি মাস খানেক থেকে লাগাতার ভাঙনে বিপর্যস্ত হয়েছে হোসেনপুর এলাকার বাসিন্দারা। বিঘার বিঘা জমি গ্রাসের পর এবার ঘরবাড়ি হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পথে বসেছেন দুই শতাধিক পরিবার। নদীগর্ভে তলিয়ে গেছে প্রায় দেড় শতাধিক মানুষের বাড়ি। গঙ্গার গ্রাসে পড়ার আতঙ্কে বসত ভিটে ছেড়ে সরকারী ক্যাম্পে আশ্রয় নিয়েছেন এলাকার হাজার হাজার বাসিন্দা। ঠিক এই সময়ে গঙ্গার জলস্তর বৃদ্ধির ফলে একটি ক্যাম্পও জলের তলায়। ফলে আবার তাদের উদ্ধার করে অন্যত্র নিয়ে যাওয়া হয়।

এদিকে শুধু হোসেনপুরেই নয়, মুর্শিদাবাদ জেলার বিভিন্ন প্রান্তে বন্যার ভ্রুকুটি লক্ষ করা যাচ্ছে। মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুর মহকুমার সেই বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন জঙ্গিপুর লোকসভার সাংসদ খলিলুর রহমান। তিনি সুতির হারোয়া, বহুতালি সহ রঘুনাথগঞ্জের একাধিক জায়গা পরিদর্শন করেন। কথা বলেন সাধারণ মানুষের সঙ্গেও। জরুরী ভিত্তিতে ব্যক্তিগত তহবিল থেকেই ত্রিপল, চিড়া সহ বিতরণ করেন।